logo
news image

আখ সংকটে মাড়াই বন্ধের ঘোষনা: অবৈধ মাড়াইকল জব্দ

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
নাটোরের লালপুরের নর্থ বেঙ্গল সুগার মিল মাইকিং করে আগামী ১৩ জানুয়ারি বন্ধের ঘোষনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। মাঠে প্রায় ৪০ হাজার মেট্রিক টন আখ থাকা সত্ত্বেও মিলে সরবরাহ না পাওয়ায় মাত্র ৫০ কর্মদিবসে মাড়াই বন্ধের ঘোষণা দেয় মিল কর্তৃপক্ষ।
বুধবার (১১ জানুয়ারি ২০২৩) উপজেলার বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের মোহরকয়া, লালপুর ইউনিয়নের মোমিনপুর, ওয়ালিয়া ইউনিয়নের দিলালপুর-রায়পুর গ্রামে ২৬টি স্থানে অভিযান চালিয়ে ১২টি মাড়াইকল জব্দ করে প্রশাসন।
জব্দকৃত অবৈধভাবে পাওয়ার ক্রাশারের (মাড়াইকল) মালিকরা হলেন, মোহরকয়া গ্রামের জোয়াব আলীর ছেলে মো. বিপ্লব আলী, রাহাত আলীর ছেলে মো. নুরু আলী, মোমিনপুর গ্রামের কলিমুদ্দিনের ছেলে আব্দুল মালেক, দিলালপুর রায়পুর গ্রামের চিয়ামত আলীর ছেলে মো. মাহাবুল ও মো. মাসুদ আলী, মাজেদ মিয়ার ছেলে মো. পিন্টু মিয়া, তোফিলের ছেলে মো. সরোয়ার, বয়াতের ছেলে মো. কালাম।
মিলের মহাব্যবস্থাপক (কৃষি) মো. আসহাব উদ্দিন বলেন, বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শরিফুল ইসলাম, বড়াইগ্রাম-লালপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরীফ আল রাজিব, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীমা সুলতানা, লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহা. মোনোয়ারুজ্জামানের নেতৃত্বে মিল এলাকায় অবৈধভাবে আখ মাড়াই বন্ধে অভিযান চালায় প্রশাসন। মিল এলাকায় ৪০৯টি অবৈধভাবে পাওয়ার ক্রাশারে আখ মাড়াই চলছে।
মিল সূত্রে জানা যায়, ৬৫ কোটি টাকা লোকসানের বোঝা নিয়ে ১ লাখ ৪০ মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ৯ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে গত ২৫ নভেম্বর চলতি মৌসুমে আখ মাড়াই শুরু হয়। এ বছর মিল এলাকায় চাষকৃত ১৮ হাজার ১০০ একর জমিতে দুই লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন আখ উৎপাদিত হয়েছে। চলতি মৌসুমে ৪৬ কর্মদিবসে (৯ জানুয়ারি পর্যন্ত) প্রায় ৭৪ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে  ৩ হাজার ৬৬৩ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদন করা হয়। চিনি আহরণের হার শতকরা ৫ দশমিক ৩৩ ভাগ।
কৃষকেরা বলেন, মিলে আখ সরবরাহ করে ভোগান্তি হয়। মাড়াইকলে বেশি দাম ও অগ্রিম টাকা পাওয়ায় মিলে আখ সরবরাহে অনিহা দেখা যায়। খাবার গুড় তৈরিতে অনেকে আখ মাড়াই করে থাকেন।
লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহা. মোনোয়ারুজ্জামান বলেন, গত শনিবার সন্ধ্যায় অবৈধভাবে পাওয়ার ক্রাশারে (মাড়াইকল) আখ মাড়াই বন্ধ করতে অভিযান চালিয়ে তোপের মুখে পড়েছে প্রশাসন। তাই সতর্ক অবস্থানে ছিল পুলিশ। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই অভিযান সম্পন্ন হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এ ধরনের ঘটনা এই এলাকায় আগেও ঘটেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীমা সুলতানা বলেন, এ সময় বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের মোহরকয়া, লালপুর ইউনিয়নের মোমিনপুর, ওয়ালিয়া ইউনিয়নের দিলালপুর-রায়পুর গ্রামে ২৬টি স্থানে অভিযান চালিয়ে ১২টি মাড়াইকল জব্দ করা হয়।
মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আনিসুল আজম বলেন, চলতি মৌসুমে পর্যাপ্ত আখ উৎপাদনে চাষিদের সার-বীজ দিয়ে সহায়তা সত্বেও আখ সরবরাহ না করায় মাড়াই কার্যক্রম বন্ধ করতে হচ্ছে। এলাকার মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের কথা ভেবে চাষিরা আগামীতে পর্যাপ্ত আখ মিলে সরবরাহ করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top