logo
news image

মালিকানা জমিতে বৃক্ষরোপনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

লালপুর( নাটোর) প্রতিনিধি
নাটোরের লালপুর উপজেলার চরমহাদিয়াড় মৌজার পদ্মার চরাঞ্চলে ব্যাক্তি মালিকানাধীন প্রায় দেড় শত একর ফসলি জমিতে বনবিভাগ কর্তৃক বৃক্ষরোপনের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ওই এলাকার ভুক্তভুগী কৃষক ও চাষীরা।
বুধবার (১৫ জুন ২০২২) বিকেলে ওই মৌজার ফসলি জমিতে এ মানববন্ধন করা হয়। মানববন্ধনে ভুক্তভুগী কৃষক ও চাষীরা জানান, উপজেলার লক্ষ্মীপুর এলাকার কয়েকশত কৃষকের ওই মৌজায় নিজ নামীয় প্রায় দেড় শ একর সম্পত্তি দীর্ঘ দিন বালু জমে থাকায় পরিবার- পরিজন নিয়ে অর্ধাহারে-অনাহারে দিন কাটিয়েছেন। বিগত কয়েক বছর আগে চরাঞ্চলের ওই জমিগুলো পলি পড়ে উর্বর জমিতে পরিণত হওয়ায় তিল, বাদাম, আখসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন করছেন। এতে তাদের সংসারে সুখ-শান্তি ফিরে এসেছে। কিন্তু তাদের এ সুখের সংসারে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে বনবিভাগ। বনবিভাগ ওই উর্বর জমিগুলো তাদের দখলে নিয়ে গাছ লাগানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে, এতে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টিসহ কৃষকের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।
তাঁরা বলেন, এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে গত ১২ জুন নাটোর জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন জমা দিয়েছেন কৃষকরা। আবেদনটি ভুমিমন্ত্রনালয়সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। বৃক্ষরোপনের নামে বনবিভাগ তাদের বাপ-দাদার সম্পত্তি দখলের অপচেষ্টা বন্ধের দাবি জানান ভুক্তভোগীরা।
উপজেলা বন কর্মকর্তা এ বি এম আব্দুল্লাহ বলেন, গত অক্টোবর মাসে বৃক্ষরোপণ প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়। অনেক খরচ হয়েছে ১ লাখ গাছের চারা রোপণ করা হয়েছে। এখন চরের জন্য আলাদাভাবে এখন তারা জমির মালিকানা দাবি করছেন।
উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও)  শামীমা সুলতানা বলেন, বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে জানানো হয়েছে। বর্তমানে বৃক্ষরোপণ প্রকল্পটি বন্ধ রয়েছে।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top