logo
news image

বিপিএম সেবা পদকে ভূষিত লিটন কুমার সাহা

ইমাম হাসান মুক্তি, লালপুর (নাটোর)
গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য স্বীকৃতি হিসেবে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম-সেবা পদক) ভূষিত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি ২০২২) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সিনিয়র সহকারী সচিব সিরাজুম মুনিরা স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে গুরুত্বপূর্ন মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রন, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহাকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) সেবা প্রদান করা হয়েছে।
এসপি লিটন কুমার সাহা বলেন, এই অর্জন তাঁর একার নয়। নাটোর জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্য এই সফলতার অংশিদার। জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্য আরো উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে কাজ করে জেলা পুলিশের জন্য বার বার সফলতা বয়ে আনুক এটাই প্রত্যাশা। তিনি কর্মজীবনের আরো সাফল্যের জন্য সবার কাছে দোয়া, আশির্বাদ ও সহযোগিতা কামনা করেন।
লিটন কুমার সাহা বিপিএম (সেবা) পদকে ভূষিত হওয়ায় নাটোরের জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদ, জেলা পুলিশের বিভিন্ন সদস্যসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তাঁর আন্তরিকতা ও সেবার মানসিকতা, মানবিকতার এক অনন্য উদাহরণ। অকৃত্রিম ভালোবাসা ও মহানুভবতা সিক্ত নাটোরের অসহায় সাধারণ মানুষ।
পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালনে জনবান্ধব এবং জনসাধারণের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠা একজন লিটন কুমার সাহা। দেশের জনগনের সার্বিক নিরাপত্তার জন্যে প্রয়োজন ভাল মানের পুলিশ প্রশাসন। যাদের কল্যানে আমাদের নিরপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত হবে। সেজন্য প্রয়োজন সৎ, নিষ্ঠাবান, দায়িত্বশীল পুলিশ সদস্য।
বর্তমানে এ বাহিনীর কিছু কর্মকর্তা, পুলিশ সদস্যদের কাজের মাধ্যমে দিন দিন মানুষ বাহিনীটির উপর আস্থা ফিরে পাচ্ছে। তেমনি এক কর্মকর্তা নাটোর জেলা পুলিশ সুপার যিনি তার দায়িত্ব পালন করে নাটোরবাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সমর্থ হয়েছেন ভাল কাজ করে। তেমনি একজন দায়িত্বশীল, সৎ, নিষ্ঠাবান নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। নাটোর জেলার দায়িত্বভার গ্রহনের পর থেকেই কাজের মাধ্যমে তিনি প্রশংসিত হয়েছেন। নাটোর জেলার থানাগুলোর আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থাকে একটা ভাল অবস্থানে নিয়ে যাওয়ার পেছনে তার অবদান সর্বজন বিদিত। তাঁর কাজে জনসাধারন যেমন খুশি তেমনি তার অধিনস্তরাও সন্তুষ্ট। একজন সৎ, নিষ্ঠাবান, দায়িত্বশীল অফিসার হিসেবে ইতোমধ্যে তিনি স্থান করেছেন নাটোরের সাধারণ মানুষের মনে। সর্বপরি সম্প্রতি স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ইউনিয়ন ও পৌরসভায় অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।
জেলা পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদানের পর থেকে তার চৌকস অফিসারদের নিয়ে রাত দিন পরিশ্রম করেন। নাটোর জেলার বিভিন্ন এলাকার শতাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে অন্ধকারের পথ থেকে আলোর পথে ফিরিয়ে এনেছেন তিনি। তাদেরকে বিভিন্ন কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন।
এছাড়াও জঙ্গি, ছিনতাইকারী, অপহরণকারী, জাল টাকা ব্যবসায়ী, অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, চোর, ডাকাত গ্রেপ্তারে বিশেষ অবদান রেখেছেন। যার ফলে স্থানীয় থানা ও পুলিশ বিভাগের প্রতি জনগনের স্বস্তি, আস্থা ও বিশ্বাসের সৃষ্টি হয়েছে। তাঁর কঠোর হস্তক্ষেপের কারণে করোনা ভাইরাসে আতংকের সুযোগে ব্যবসায়ী ও মজুদদাররা অপরাধ করতে পারেননি। নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা নাটোরবাসী নিশ্চিন্তে জীবনযাপন করছে।
নাটোরের আইন-শৃঙ্খলার সার্বিক উন্নয়নে জেলা পুলিশ সুপারের গৃহিত কর্মসূচীর বাস্তবায়ন ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে জেলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে বর্তমান পুলিশ সুপার অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যেই জঙ্গী, সন্ত্রাসী, ডাকাত, মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার, ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেপ্তার, অস্ত্র উদ্ধারসহ অপরাধ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সুনাম অর্জন করেছেন।
তার প্রত্যক্ষ দিক-নির্দেশনায় নাটোরের ৭টি থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা সংস্থা (ডিবি)। জটিল ও কঠিন মামলার জট খুলে রহস্য উম্মোচন করে দীর্ঘ মেয়াদি মামলাকে সংক্ষিপ্ত করেছে। ইয়াবা, ফেনসিডিল, গাঁজা, হেরোইন, অস্ত্রসহ মাদক উদ্ধার ও ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে। একের পর এক সাঁড়াশি অভিযানে লন্ডভন্ড করে দিয়েছে মাদকের অস্তানা।
সিরিয়াল কিলার বাবু শেখকে গ্রেপ্তার, জেলার আলোচিত হত্যার আসামীদের গ্রেপ্তার, অপহৃত উদ্ধার, বিদেশী টাকা, চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধারসহ রয়েছে নানা সাফল্য। এজন্য অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ নানা সময় পুলিশ বিভাগ পুরস্কৃত করেছে। নাটোরের বনবেলঘড়িয়া বাইপাসে দুই বাসযাত্রীর জুতার ভেতর থেকে ৮০ হাজার মার্কিন ডলার উদ্ধার করা ।
প্রায় দেড়কোটি টাকা মূল্যের দেড় কেজি হেরোইন এবং একটি মাইক্রোবাসসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করে। নাটোর জেলা পুলিশ জরুরি হেল্পলাইন নম্বরে অভিযোগ পেয়ে ১৮টি গরুসহ চার ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় ডাকাতির কাজে ব্যবহার করা দুটি ট্রাকও জব্দ করা হয়।
এছাড়া মাদক, আন্তঃজেলা ডাকাত, ছিনতাইকারী, প্রতারক চক্রসহ বিভিন্ন অপরাধ দমনে জেলা পুলিশের পাশাপাশি ডিবি পুলিশও সার্বক্ষণিক তৎপর রয়েছে। মাদক বিরোধী এবং জঙ্গিবাদ বিরোধী গণসচেতনতায় সফল হয়েছে ডিবি পুলিশ। নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে প্রায় প্রতিদিনই উদ্ধার হচ্ছে বিভিন্ন প্রকার মাদকদ্রব্য এবং আটক হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী, পাচারকারী এবং মাদকসেবী যা অতীতের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। আইনের আওতায় আনা হয়েছে বহু শীর্ষস্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী, পলাতক আসামী, আন্তঃজেলা ডাকাত দল, ছিনতাইচক্রের সদস্যসহ বিভিন্ন অপরাধী চক্রকে।
লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফজলুর রহমান বলেন, শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট যেমন আত্মতৃপ্তির, তেমনি কর্ম¯পৃহা বাড়ানোর তাগিদপত্রও বটে। নাটোরের সুযোগ্য পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা আমাদের কাজের মূল অনুপ্রেরণা। তাঁর চৌকস নির্দেশনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ। লালপুরে অপরাধ দমন, ইমো হ্যাকার নির্মূলে পদক্ষেপ গ্রহণ তাঁর নির্দেশনাতেই সম্ভব হয়েছে। তুলনামূলক অপরাধ প্রবণতা হ্রাসকরণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দৃশ্যমান ভূমিকা রাখছে। এ ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পুলিশের পাশাপাশি ব্যক্তি ও পারিবারিক পর্যায়ে সচেতনতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top