logo
news image

রূপচর্চায় চকলেটের কার্যকরীতা

চকলেটের লোভনীয় স্বাদ কার না পছন্দ। ছোট বড় সবাই একবাক্যে চকলেটের ভক্ত। কিন্তু দারুণ ইয়ামি খাবারটি সৌন্দর্য চর্চায়ও যে দারুণ কার্যকরী, যে কথা আমরা অনেকেই জানি না।চকলেটের মধ্যে এমন কিছু গুণাবলি রয়েছে যা ত্বককে আর্দ্র রাখে। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে সজীব। চকলেটে রয়েছে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ত্বককে দূষণের হাত থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করে। ত্বকের কোষ পুনর্গঠনে সাহায্য করে, ত্বককে ঝকঝকে করে তোলে। চকলেট ব্যবহার করা যায় বিভিন্নভাবে। চকলেট ফেসপ্যাক লাগানোর আগে মুখ ক্লিনজার দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

একটি বাটিতে ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল নিন। এতে এক ফোঁটা ভ্যানিলা এসেন্স দিন, এক টেবিল চামচ ব্রাউন সুগার ও এক টেবিল চামচ গলানো কোকোয়া দিন। ভালোভাবে মেশান। এবার এই প্যাক প্রথমে সারা মুখে লাগিয়ে নিন। এরপর রগড়ে তুলে নিন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

চকলেট মাস্ক : বাটিতে ৫০ গ্রাম চকলেট নিন। গরম পানির ওপর রেখে গলিয়ে নিন। গলে গেলে এর সাথে এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল ও একটা ডিমের কুসুম দিয়ে ফেটিয়ে নিন। এবার ত্বকে লাগিয়ে রেখে দিন। ১৫ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

চকলেট স্ক্রাব : ২ টেবিল চামচ কোকো পাউডার অল্প গরম পানি দিয়ে গুলে নিন। এর সাথে ৩ চা চামচ লবণ মেশান। লবণ এক্সফলিয়েটর হিসেবে ভালো কাজ করে যা ডেড সেল দূর করতে সাহায্য করে। এবার ১ চা চামচ কাঁচা দুধ এর সাথে মিশিয়ে ত্বকে ঘষে নিন।

স্ক্রাবার হিসেবে : হিসেবে চকলেটের সাথে দুধ ও টকদই মিশিয়েও ব্যবহার করা যায়। এই প্যাক ত্বক পরিষ্কার করে, এক্সফলিয়েট করে ত্বককে করে তোলে আরো উজ্জ্বল।
দুধের সাথে কোকো পাউডার মিশিয়ে ভেজা ত্বকে ম্যাসাজ করতে পারেন। ১০ মিনিট ধরে ক্লক ওয়াইজ ও অ্যান্টি ক্লক ওয়াইজ দু’ভাবেই ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ম্যাসাজ করুন। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

অ্যান্টি এজিং : ত্বকে বলিরেখা পড়ুক সেটা কেউই চায় না। চকলেটে রয়েছে সেই গুণ যা এজিংয়ের সাথে দেখা দেয়া বলিরেখা রুখতে সাহায্য করে। ডার্ক চকলেট ত্বকের ইলাস্টিসিটি ধরে রেখে বলিরেখা রোধ করতে সাহায্য করে। দুধের সাথে চকলেট মিশিয়ে সপ্তাহে তিন দিন ত্বকে লাগান। উপকার পাবেন।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top