logo
news image

বড়াইগ্রামে হাটে জনসমাগম ঠেকাল সেচ্ছাসেবী যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বড়াইগ্রাম নাটোর
নাটোরের বড়াইগ্রামের উপজেলার সবচেয়ে বড় মৌখাড়া হাটের করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে জনসমাগম ঠেকাল কিছু যুবক। শুক্রবার ভোর থেকে দিন ব্যাপি এই কার্যক্রম পরিচালিত হয়। হাটের প্রবেশ দ্বারে বসানো হয় বাঁশের তল্লাশী বক্স। ঢুকতে দেওয়া হয় না মাল বোঝাই কোন গাড়ী। কাচা সবজী ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ক্রয় করতে পারে মানুষ। সচেতন করা হয় হাটের ভিরতে ঢুকে কিভাবে বাজার করতে হবে। এই কার্যক্রমে অংশ গ্রহন করে বাজারের আশে পাশের কিছু যুবক।
সেচ্ছাসেবক মতিউর রহমান সুমন জানান, প্রতি শুক্রবার এই হাট বসে। প্রায় অর্ধলক্ষাধীক লোকের সমাগম ঘটে হাটে। সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখতে পুলিশ ভুমিকা রাখলেও যতক্ষন পুলিশ অবস্থান করে ততক্ষন সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখে, পুলিশ চলে গেলেই জনগণ জটলা বাধতে শুরু করে। ফলে করোনা ভাইরাসের নিরাপদ সামাজিক দুরুত্ব বজায় থাকেনা। আমরা কিছু যুবককে একত্র করে সিন্ধান্ত নেই এই এলাকায় সামজিক দুরুত্ব বজায় রাখার। হাটের প্রতিটা রাস্তায় বসানো হয় বাশের তল্লাশী বক্স। কাচামাল বাদে কোন মালামাল হাটে ঢুকতে দেওয়া হয় নাই। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যদি যারা ক্রয় করতে আসবে তাদের সামাজিক দুরুত্ব কিভাবে বজায় রাখতে হবে প্রবেশ দ্বারেই তা বুঝিয়ে দেওয়া হয়।
বড়াইগ্রাম থানার পরিদর্মক দিলিপ কুমার দাস বলেন, এটি খুবই ভাল উদ্যোগ। থানার আওতাধীন সকল হাটের এলাকায় এরকম উদ্যোগ নেওয়া উচিৎ।
উপজেলা নিবাহী কর্মকর্তা বলেন, এটি ভাল উদ্যোগ। এটি মডেল করা যেতে পারে।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top