logo
news image

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঈশ্বরদীতে মুক্তিযোদ্ধার জমি দখল

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঈশ্বরদীর মানিকনগর গ্রামে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জমি দখলের প্রতিবাদে সোমবার সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা আহম্মদ আলী সরদার জানান, ১৯৫১ সালে তাঁর পিতা মনছের আলী সরদার ২.৪৯ একর জমি ক্রয় করেন। ওয়ারিশ সূত্রে তিনিসহ ৮ ভাই-বোন এই জমির মালিক এবং জমিতে কৃষি কাজ করতেন। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের সময় ওই জমিতে অস্থায়ীভাবে আনসার ভিডিপি ক্যাম্প স্থাপন করে প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। ১৯৮১ সাল পর্যন্ত ওই জমির খাজনা নেয়া হলেও আরএস রেকর্ডে ভুলবশত জমি আনসার ভিডিপি’র নামে রেকর্ড হয়। পিতা মনছের আলী মারা যাওয়ার পর আমরা ওয়ারিশরা খাজনা দিতে গেলে আর খাজনা নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন। এবিষয়ে পাবনার যুগ্ম জজ আদালতে স্বত্ব ঘোষণার দাবীতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ২৩৬/২০১৯। আহম্মদ সরদার অভিযোগ করেন, মামলা চলাকালে আনসার ভিডিপির নামধারীরা ওই জমির আউন্ডারী ওয়াল ও পাকা ঘর নির্মাণের চেষ্টা করেন। দেওয়ানী কার্যবিধির ১৫১ ধারায় বাদীপক্ষ আদালতে আবেদন জানালে আদালত স্থাপনা নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা জারী করেন। তদুপরি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নালিশী জমিতে জবর দখল করে বাউন্ডারী ওয়াল ও পাকা ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রকৃত মালিকদের উচ্ছেদ এবং বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীত ও হুমকী প্রদর্শন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়।   
এসময় অন্যান্য ওয়ারিশদের মধ্যে মোক্তার সরদার, আমজাদ সরদার, ইসলাম সরদার, আজমাল সরদার, জিন্না খাতুন ও হাউচজান এবং তাদের অন্যান্য উত্তরাধিকার উপস্থিত ছিলেন।

সাম্প্রতিক মন্তব্য