logo
news image

সাস্ট ক্লাব নির্বাচন: সদস্য পদে ১২ প্রার্থীর পরিচিতি

নিজস্ব প্রতিবেদক।  ।  
সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্ষিপ্ত রূপই হচ্ছে সাস্ট।  আগামী ১৯ জুলাই সাস্ট ক্লাবের প্রথম কার্যকরী কমিটি নির্বাচন। নির্বাচনে ১১টি পদে ২৩ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় গ্রাজুয়েটদের সাস্ট ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ৪৯৭ জন। এর মধ্যে বিদেশে অবস্থান করছেন ১০৭ জন। সদস্য পদে নির্বাচন করছেন ১২জন।  প্রার্থীরা হলেন, শমসের রাসেল (০২২৩), সায়েদ আব্দুল্লাহ যীশু(০০৮১),  নূর ই আলম সিদ্দিকী স্বপন (০০৩০), এইচ এম মামুন (০০২৯), মো. মাসুদুর রহমান (০০২৮), ফাতেমা জেরিন ফারহানা (০০৮৯), মো. নূরে আলম মিল্টন (০০৯০), মোশাররফ হোসেন পলাশ (০২১৯), মো. বরকত উল্লাহ (০৩০৫), মো. এ এস আরফিন খান নোবেল (০৩৫২), মাহামুদ ফারুক (০৩৮০) ও আবুল হাসানাত রুম্মান (০৪৬১)। এদের মধ্যে সদস্য পদে নির্বাচিত ৬জন নির্বাচিত হবেন।  
প্রার্থীদের কর্মকান্ড ও সংক্ষিপ্ত পরিচিতি তুলে ধরা হলো:
শমসের রাসেল (০২২৩):
সদস্য পদপ্রার্থী শমশের রাসেল, পরিসংখ্যান বিভাগ, ৪র্থ ব্যাচ, সাস্ট।।
পোষ্য কোটা বিরোধী আন্দোলন, রজত জয়ন্তী উদযাপন, ২০১৭ এর বন্যায় ক্যাম্পাস থেকে রংপুর-কুড়িগ্রাম এসোসিয়েশন এর ব্যানারে ত্রাণ সংগ্রহ, ডিস্ট্রিবিউশনসহ সিলেটের সব ভলান্টারি এবং প্রগ্রেসিভ কাজের সাথে জড়িত।  চির তরুন, সাস্টের ক্যাম্পাসের সব সময়ের বিপদের বন্ধু। ২০১২ সাস্ট রিইউনিয়নের জয়েন্ট কনভেনর, স্ট্যাটিসটিকস রিইউনিয়ন এর জয়েন্ট কনভেনর ছিলেন। 
সায়েদ আব্দুল্লাহ যীশু (০০৮১):  
সাস্ট ক্লাব নির্বাচনে সদস্য পদের প্রার্থি সায়েদ আব্দুল্লাহ যীশু। সাস্ট ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা আজীবন সদস্য। সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১২তম ব্যাচের ছাত্র। পড়াশোনার পাশাপাশি করেছেন সাংবাদিকতা। দৈনিক জনকণ্ঠ, দৈনিক ভোরের ডাক এবং দৈনিক যুগভেরীর রিপোর্টার হিসাবে কাজ করেছেন। আত্মপ্রচার বিমুখ কিন্তু সাংগঠনিকভাবে দারূণ দক্ষ। বেশ কয়েকটি সামাজিক সংগঠনে দায়িত্ব পালন করছেন। সাস্টিয়ান নরসিংদীর সাধারণ সম্পাদক, সমাজবিজ্ঞান এলামনাই এসোসিয়েশন ও ঢাকাস্থ শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক ফোরামের নির্বাহী সদস্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষ হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। কখনো কোন রাজনৈতিক দলের সাথে জড়িত ছিলেন না, তবে তার মধ্যে সাস্টিয়ান অনুভূতি বেশ প্রখর। বর্তমানে পূবালী ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার হিসাবে কর্মরত আছেন।
সায়েদ আব্দুল্লাহ যীশু দৈনিক প্র্রাপ্তি প্রসঙ্গকে জানান, সাস্টিয়ান আবেগ-অনুভূতি বাস্তবায়নের জন্যই তিনি প্রার্থি হয়েছেন। দেশে অনেক পুরনো বিশ্ববিদ্যালয় থাকলেও সাস্টিয়ানদের মত অনভূতি আদান-প্রদানের কোন প্লাটফর্ম তৈর করতে পারেনি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থিরা। এই জায়গাতেই সাস্টিয়ানরা অনন্য। যে কোন মূল্যেই আমরা একে অন্যের সহযোগিতায় এগিয়ে আসতে চাই।
সাস্ট ক্লাব সাস্টিয়ানদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি মঞ্চ৷ অদূর ভবিষ্যতে সাস্টিয়ানদের উপরতো বটেই অন্যদের উপরও ক্লাবের প্রভাব অলঙ্ঘনীয় হয়ে উঠবে৷ শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বয়স কম হওয়ায় তার গ্র্যাজুয়েটরা এখনও বড় বড় পদগুলোতে যেতে পারেনি৷ কিন্তু সময়ের ব্যবধানে অনেক বড় পদে অধিষ্ঠিত হবে৷ এসব বড়-ছোট সকল পদের মানুষের প্রাণকেন্দ্র সাস্ট ক্লাব৷ তাদের সহযোগিতায় ইতিবাচক অনেক কার্যক্রম বাস্তবায়ন সম্ভব হবে৷ নির্বাচিত হলে সেসব কার্যক্রম বাস্তবায়নে জোর দেব, সামাজিক বন্ধন আরও দৃঢ় করতে চেষ্টা করব৷
নূর ই আলম সিদ্দিকী স্বপন (০০৩০):
সদস্য পদপ্রার্থী মুঃ নূর-ই-আলম সিদ্দিকী (স্বপন নূর), শাবিপ্রবির ১৫ তম ব্যাচে (২০০৪-০৫), পরিসংখ্যান বিভাগ।  বরেন্দ্র এলাকার সাস্টিয়ানদের সংগঠন "বরেন্দ্র এসোসিয়েশন" গঠনে অগ্রনী ভূমিকা পালন ও প্রথম নির্বাহী কমিটির ভিপি (ভাইস প্রেসিডেন্ট) হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেছেন। শাবিপ্রবিতে অধ্যায়নকালে "কিনইয়ার্ডস (প্রাঃ) লিঃ" প্রতিষ্ঠা করেছেন। বর্তমানে জনপ্রিয় ফুড বেজড ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান www.kinyards.com এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন।
এইচ এম মামুন (০০২৯):
সদস্য পদপ্রাথী এইচ. এম. মামুন, গনিত বিভাগ, ১৯৯৯-২০০০ (১০ম ব্যাচ)। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন বিভাগীয় বিভিন্ন কার্যকলাপ ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠনের একাধিক সাংগঠনিক পদে দায়িত্ব পালন করেন। সাস্ট ক্লাবের সকল প্রকার কার্যক্রমে আগের মতই নিষ্ঠার সাথে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে চান।  ক্লাবের সকল ভালো কাজে সবাই একসাথে থাকবেন।  
মো. মাসুদুর রহমান (০০২৮):
নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচের ছাত্র মো. মাসুদুর রহমান।
তিনি বর্তমানে বিকাশ লিমিটেরে প্রটোকল এন্ড সিকিউরিটি বিভাগের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত আছেন। পেশাগত জীবনে তিনি বিভিন্ন সুনামধন্য করপোরেট প্রতিষ্ঠানে প্রশাসনিক ও নিরাপত্তা বিভাগে দক্ষতা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ থেকে (১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষ) স্নাতক সম্পন্ন করেছেন।
ফাতেমা জেরিন ফারহানা (০০৮৯):
সদস্য পদপ্রার্থী ফাতেমা জেরীন ফারহানা, ১০ ব্যাচ, রসায়ন, বি.এসসি. (শাবিপ্রবি), এম. ফিল রসায়ন (বুয়েট), পিএইচডি রসায়ন, (বুয়েট) শেষ বর্ষ। ব্যাংকার, কর্মসংস্থান ব্যাংক। একমাত্র মেয়ে যে কিনা সব সময় ক্লাবের জন্মলগ্ন থেকেই জড়িত ক্লাবের সাথে। আসন্ন সাস্ট ক্লাবের নির্বাচনের একমাত্র নারী সদস্য প্রার্থী।
মো. নূরে আলম মিল্টন (০০৯০):
সদস্য পদপ্রার্থী মো. নূরে আলম মিল্টন, বিভাগ ও ব্যাচ: সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ, ৭ম ব্যাচ (সবি ৫ম ব্যাচ)।  শাবিপ্রবি থেকে বিএসএস ও এমএসএস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গভার্নেন্স এন্ড পাবলিক পলিসি‘তে মাস্টার্স এবং ফ্রেডকরপসেট-নরওয়ে (Fredkorpset-Norway) এর প্রাক্তন ফেলো (Fellow)। বর্তমানে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র গবেষণা বিভাগে কর্মরত। এছাড়াও কর্মজীবনের বিভিন্ন সময়ে টিআই-শ্রীলংকা, টিআই-ইন্ডিয়া, টিআই-থাইল্যান্ড, নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটি স্টেইন, ইউএন-হ্যাবিটেট, ইউএনডিপি, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, প্ল্যান ইন্টারনেশনাল, কনসার্ন, পপুলেশন কাউন্সিল, সেভ দ্যা চিলড্রেন, উইনরক ইন্টারন্যাশনালসহ প্রায় ২৫টি জাতীয় ও আন্তজাতিক প্রতিষ্ঠানে একচেঞ্জ ফেলো, গবেষক ও এক্সপার্ট হিসেবে কাজ করার অভিজ্ঞতা।
শাবিপ্রবিতে শিকড়, রোভার স্কাউট, সাস্ট ডিবেটিং সোসাইটি, দিক থিয়েটার এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের বিভিন্ন পর্যায়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা। এছাড়াও শাবিতে আয়োজিত প্রথম বই মেলা ও বৈশাখী বন্ধনের উদ্যোক্তাদের একজন। ক্যাম্পাসে গাছ লাগানো ও ছাত্রদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে অগ্রগণ্য ভূমিকা রয়েছে।
মোশাররফ হোসেন পলাশ (০২১৯):
সদস্য পদপ্রার্থী মোশাররফ হোসাইন পলাশ, (১৪ তম ব্যাচ), নৃবিজ্ঞান বিভাগ।  সাবেক সাধারন সম্পাদক, স্পোর্টস সাস্ট।  বর্তমানে রিসার্চ অফিসার হিসাবে আইসিডিডিআর,বি তে কর্মরত। ক্যাম্পাসে সবাই খেলোয়াড় হিসাবে চিনে।
মো. বরকত উল্লাহ (০৩০৫):
সদস্য পদপ্রাথী মোঃ বরকত উল্লাহ, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ, শিক্ষা বর্ষ : ২০০২-২০০৩ (১৩তম ব্যাচ). বর্তমান কর্মরত প্রিন্সিপাল অফিসার, রূপালী ব্যাংক লিঃ, রাজারবাগ শাখা, ঢাকা। তিনি বলেন, সাস্ট শব্দটি আমার কাছে শুধু একটি শব্দ নয়... এটি আমার কাছে একাধারে আমার সত্তা, আমার প্রাণ, আমার অনুভূতি......প্রাণের সাস্ট ক্লাবের প্রথম নির্বাচনে কার্যকরী সদস্য হিসেবে আমার সত্তা, আমার অনুভূতিকে আরও নিবিড়ভাবে আপনাদের কাছে তুলে ধরার সুযোগ চান।  
মো. এ এস আরফিন খান নোবেল (০৩৫২):
ড. মোহাম্মদ এ. এস. আরফিন খান, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ম ব্যাচের (২০০১-০২) ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স বিভাগ।   DAAD স্কলারশীপ নিয়ে PhD এবং Post Doctorate ডিগ্রি সম্পন্ন করে উক্ত ডিপার্টমেন্টে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। ছাত্রজীবনে ডিপার্টমেন্টের সংগঠনের ভিপি (ভাইস প্রেসিডেন্ট) হিসেবে এবং শিক্ষকতা জীবনে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির নির্বাচিত সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হলে যা করবেন:
১। এই ক্লাবকে সকল প্রকার বৈষ্যমের বাইরে সাস্টিয়ানদের মিলনমেলার প্লাটফর্ম হিসেবে গড়ে তোলা এবং সকল সাস্টিয়ান যেন এই ক্লাবের সদস্য হয় সেজন্য পদক্ষেপ নেওয়া।
২। সাস্ট ক্লাব ও আমাদের সবার প্রাণের প্রিয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সেতুবন্ধনের চেষ্টা করা। এইলক্ষ্যে, ক্যাম্পাসে সাস্ট ক্লাবের লিয়াজোঁ অফিস রুমের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা।
৩। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি দায়বদ্ধ্যতাস্বরূপ, সদ্য পাশ করা সাস্টিয়ানদের নিয়ে চাকুরি বিষয়ক কর্মশালার ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা এবং পাশাপাশি যারা উচ্চশিক্ষার্থে বিদেশে যেতে চায় তাদের জন্য নিয়মিত তথ্যমূলক সেমিনারের আয়োজন করা।
৪। ক্লাবের আয় বাড়াতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা ও আয়ের সঠিক ব্যবহার, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে সচেষ্ট থাকা।
৫। ক্লাবের সম্মৃদ্ধির জন্য নিজস্ব ভবন নির্মাণের লক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।
৬। ঢাকার পাশাপাশি অন্য শহরে ও প্রতিবছর পূর্ণমিলনীর আয়োজন করা l আমার ধারণা, এটি সকল সাস্টিয়ানদের উদ্বুদ্ধ করবে এই ক্লাবের সদস্য হতে l
৭। উন্নত চিকিৎসার একটি তহবিল গঠন করা, যেন আমাদের মধ্যে যাদের চিকিৎসা সহায়তার প্রয়োজন হবে তাদের সহযোগিতা করা যায়। পাশাপাশি, ক্লাবের সদস্যদের সুস্বাস্থ্যের জন্য একটি ব্যায়ামাগার চালু করা।
৮। ক্লাবের সদস্যদের জন্য একটি মুক্তিযুদ্ধ কর্নার, সাহিত্য ও বিজ্ঞান বিষয়ক পাঠাগার স্থাপন করা।
৯। পরিশেষে “A CLUB FOR All SUSTIAN” এই মূলমন্ত্রে ক্লাব কে পরিচালিত করা এবং সবার মতামত প্রদানের সুব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত করা। এইলক্ষ্যে, ক্লাবের সদস্যগণ যেন সশরীরে উপস্থিত না থেকেও তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সে ব্যপারে ভূমিকা রাখা।  
মাহামুদ ফারুক মুনির, (০৩৮০):
সদস্য পদপ্রাথী মাহামুদ ফারুক মুনির, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগ (১১তম ব্যাচ, সাস্ট)।  
অনুসন্ধান ক্লাব সাস্ট এর সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।   বর্তমানে ম্যানেজার কমপ্লায়েন্স, পিডিএস মাল্টিন্যাশনাল গ্রুপ।  
আবুল হাসানাত রুম্মান (০৪৬১):
সদস্য পদে নির্বাচন করছেন মোঃ আবুল হাসানাত রুম্মান।  ১ম ব্যাচ- ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টি টেকনোলজি, ১৫ তম ব্যাচ-শাবিপ্রবি, সেশন-২০০৪-২০০৫।  মেম্বার- FET Alumni, কো-কনভেনার-র্যা গ ২০১০।  

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top