logo
news image

মুক্তিযোদ্ধা সেলিম হত্যায় চেয়ারম্যান এনাম বিশ্বাস জড়িত দাবি করেছেন নিহত সেলিমের পরিবার

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদীর রূপপুরে মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম হত্যাকান্ডের সাথে পাকশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ^াস জড়িত বলে দাবি করেছেন নিহত মুক্তিযোদ্ধা সেলিমের ছেলে তানভির রহমান তন্ময়। বৃহস্পতিবার ঈশ্বরদী প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন তিনি এই দাবি উত্থাপন করে আরো বলেন, গত ১৬ এপ্রিল স্থানীয় সাপ্তাহিক পত্রিকার মাধ্যমে হত্যাকান্ডে প্রকৃত খুনিদের আড়াল করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে।
লিখিত বক্তব্যে তন্ময় বলেন, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প কর্তৃপক্ষ পদ্মানদীর চরের খাস জমি অধিগ্রহণ পূর্বক সরকার ফসলের ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রায় ২৮ কোটি টাকা বরাদ্দ করে। কুচক্রী এনাম বিশ্বাস আত্মীয়স্বজন ও ব্যক্তিগত কর্মচারীকে ভূয়া কৃষক সাজিয়ে তালিকা প্রনয়ন করে এবং টাকা উত্তোলনের অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়। ক্ষতিপূরণের টাকা যেন প্রকৃত কৃষকরা পায়, এই দাবিতে আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা সেলিম সোচ্চার ছিলেন। একারণে ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস মাস্তান বাহিনীসহ আমাদের বাড়িতে এসে পরিবারের সকলের সামনে ‘টাকা উত্তোলনে বাধা সৃষ্টির পরিনাম মোটেও ভালো হবে না’ বলে হুমকি- ধামকিও দেয়। এর কিছুদিন পর ৬ ফেব্রুয়ারি রাতে বাড়ির গেটে আমার বাবা গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তন্ময় জানান, আমার বাবা হত্যাকান্ডের  পরপরই এনাম বিশ্বাসের ভাতিজা আরজু বিশ্বাস , ছেলে রকি বিশ্বাস ও তার দুই সহযোগি লিখন ও রাজিবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ একাধিকবার জানিয়েছেন এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে আরজুসহ বেশ কয়েকজন জড়িত রয়েছে। আমরা বিভিন্নভাবে বিষয়টি তদন্ত করেও দেখেছি। গ্রেফতারকৃতরা এনাম বিশ^াসের স্বজন ও নিজস্ব লোক। এনাম বিশ্বাসের নির্দেশে রূপপুর এলাকায় গ্রেফতারকৃত সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছিলেন। তাই আমরা অকপটে বলতে চাই আমার বাবা হত্যাকান্ডে এনাম চেয়ারম্যান পরিকল্পনাকারী ও নির্দেশদাতা। তাঁকে দ্রুত গ্রেফতারের জন্য আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলেন উপস্থিত ছিলেন নিহত মুক্তিযোদ্ধা সেলিমের স্ত্রী দিলারা বেগম, মেয়ে সানজানা রহমান ত্রপা, ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ¦ নায়েব আলী বিশ্বসে, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আবুল কালাম মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক ইছাহক আলী মালিথা, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডল, মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান ফান্টু, আতম শহিদুজ্জামান নাসিম, জাহাঙ্গীর আলম, আ’লীগ নেতা জহুরুল হক মালিথা, মহিদুল ইসলাম ইসলামসহ শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা ও এলাকাবাসী।
সংবাদ সম্মেলন থেকে আগামী ২৪শে এপ্রিল মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম হত্যাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে ঈশ্বরদীর মাহাবুব আহম্মেদ খাঁন স্মৃতি মঞ্চে অনশন কর্মসূচীর ঘোষণা দেওয়া হয়।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য