logo
news image

লালপুরের ময়না যুদ্ধ দিবসে স্মরণ সভা

নিজস্ব প্রতিবেদকক।  । 
লালপুর,নাটোর: আজ ৩০ শে মার্চ নাটোরের লালপুর উপজেলার ওয়ালিয়া ইউনিয়নের ঐতিহাসিক ‘ময়না যুদ্ধ’ দিবস। নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। এ উপলক্ষে আজ সেখানে মিলাদ মাহফিল, স্মৃতিচারণ ও স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। 
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নাটোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল স্মৃতিস্তম্ভে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে কর্মসূচির সূচনা করেন।  এ সময় জাতীয় সঙ্গীত গাওয়াসহ দলীয় ও  কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। 
পরে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- এমপি শহিদুল ইসলাম  বকুল,  জেলা মুক্তযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুর রউফ ও উপজেলা চেয়ারম্যান ইসাহাক আলী প্রমুখ।
প্রধান অতিথি বলেন,  বর্তমানে দেশে মুক্তিযুদ্ধের সরকার ক্ষমতায় আছে। তাই সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সুবিধা প্রদানে সরকার বদ্ধপরিকর। এছাড়া যেসব স্থানে মুক্তিযুদ্ধ অনুষ্ঠিত হয়েছে সে সকল স্থান সংরক্ষণ করে নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরার মাধ্যমে পুরো জাতিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গঠন করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে  সরকার। আর এটা নিশ্চিত করা গেলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার পরিণত হবে দেশ।  
১৯৭১ সালের এই দিনে উপজেলার ময়না গ্রামে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর সাথে লালপুর উপজেলার মুক্তি পাগল জনতা, ইপিআর ও আনসার বাহিনীর সম্মুখ যুদ্ধ হয়। এ যুদ্ধে হানাদারদের ২৫ রেজিমেন্ট ধ্বংস হয় এবং বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল আসলাম হোসেন খান ওরফে রাজা খান জনতার হাতে ধরা পড়ে। পরের দিন ৩১ মার্চ লালপুর শ্রীসুন্দরী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।
ময়না যুদ্ধে প্রায় অর্ধশত বাঙ্গালি শহীদ ও ৩২ জন আহত হন। সেই থেকে দিবসটিকে ঐতিহাসিক ‘ময়না যুদ্ধ’ দিবস হিসাবে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন  নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালন করে আসছে।
সম্পাদনায়: আ.স ৩০/০৩/২০১৯

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top