logo
news image

নাটোরে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের জেলা প্রশাসনের সহযোগিতা

আক্তারুজ্জামান।  ।  
গত ১৫/৩/১৯ রাত ৯.৩০ টায় নাটোর সদর উপজেলার ৩নং দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের ধরাইল (দিয়ার পাড়া) গ্রামে বড় ধরনের অগ্নিকাণ্ডে ৬ টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ফায়ার সাভিস ও সিভিল ডিফেন্স বাহিনী ঘটনাস্থলে আগুন নিভাতে আসেন একই সাথে নাটোর থানা পুলিশ ঘটনস্থলে আসেন। গ্রাম বাসী ও ফায়ার সার্ভিস বাহিনীর সহায়তায় আগুন নিভানো হয়। ৬ টি ঘরের কোন মালামাল উদ্ধার করা যায়নি। ঘরে বসবারত (১) মোজাম্মেল মন্ডল (৪৫) (২) মোছাঃ সামছুন নাহার(৩৫) (৩) শাহিদা (১৫) এস এস সি পরীক্ষার্থীকে গুরুত্বর অবস্থায় রাতেই নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১ টি খাশি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। একটি গরু আগুনে ঝলসে গেছে, চিকিৎসা চলছে। ক্ষতিগ্রস্থতের মধ্যে (১) মোজাম্মেল হক এর ৩ টি ঘর পুড়ে গেছে (২) করিম এর ২ টি ঘর পুড়ে গেছে এবং ইসমাইল হোসেন এর ১টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আগুনে পুড়া ঘরগুলোত ক্ষতিগ্রস্থদের বসবাসের জন্য কাপড়, আসবাবপত্র, নগদ টাকা পয়সা ও মালামাল ছিলো। কিন্তু অলোকিকভাবে ঘরে রক্ষিত পবিত্র কোরআন শরীফটি অক্ষত রয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কর্মরত মোঃ আক্তারুজ্জামান রাতেই অগ্নিকান্ডের বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার, নাটোর সদর, নাটোরকে অবহিত করেন। তিনি ঘটনাস্থল সরেজমিনে আসবেন বলে জানান। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বাহিনী জানান যে, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানান। মোছাঃ জেসমিন আকতার বানু, উপজেলা নিবাহী অফিসার, নাটোর সদর, নাটোর ও মোঃ উমর খৌয়াম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, নাটোর সদর, নাটোর অদ্য ১৬/৩/১৯ তারিখ সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় ঘটনাস্থলে সরেজমিনে পরিদর্শনে আসেন। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর মাঝে শুকনা খাবার ও কম্বল বিতরন করেন। ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর নির্মাণের জন্য টিন ও আর্থিক অনুদান প্রদানের জন্য আশ্বাস দেন। আগুনে ঝলসে যাওয়া গরুটির প্রায়োজনীয় চিকিৎসা করার জন্য উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন। চিকিৎসারতদের বিষয়ে খোজখবর নেন। ক্ষতিগ্রস্থদের দ্রুত আর্থিক সহায্যের আবেদন দাখিল করার জন্য বলেন, আবেদন প্রাপ্তির সাথে সাথে দ্রুত অনুদান প্রদান করা হবে বলে জানান।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top