logo
news image

এপ্রিলে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি ফোরাম এটমেক্সপো-২০১৯

রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর সোচিতে আগামী ১৫ ও ১৬ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে ১১তম আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি ফোরাম এটমেক্সপো-২০১৯। ফোরামটির মূল প্রতিপাদ্য আধুনিক পরমাণু শক্তি প্রযুক্তি। দু-দিন ব্যাপী ফোরামটিতে কার্বন মুক্ত এনার্জি, পরিবেশ ও প্রাকৃতিক সম্পদের প্রতি দায়িত্বশীল আচরণ, ‘গ্রীণ’ বিনিয়োগ এবং টেকসই উন্নয়নের জন্য আন্তর্জাতিক অংশিদারিত্বসহ বিভিন্ন সমসাময়িক বৈশ্বিক ইস্যু স্থান পাবে। ১৩ হাজার বর্গমিটারের অধিক স্থান জুড়ে অনুষ্ঠিত হবে ফোরামটি।
বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৬০টির অধিক দেশ থেকে ৬ হাজারেরও বেশী প্রতিনিধি এবারের এটমেক্সপোতে অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। পরমাণু শিল্পের নেতৃবৃন্দ; সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান; রুশ ও অন্যান্য বিদেশী কোম্পানী এবং আধুনিক পারমাণবিক বিজ্ঞানে বিশেষজ্ঞবৃন্দ ফোরামে তাদের নিজস্ব জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে উৎকৃষ্ট উদাহরণগুলো অন্যান্যদের সঙ্গে বিনিময় করবেন। এনার্জি উৎপাদনে পারমাণবিক প্রযুক্তির ব্যবহার থেকে শুরু করে এনার্জি বহির্ভূত খাতে পারমাণবিক এবং রেডিয়েশন প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে গোল টেবিল বৈঠক এবং আলোচনা সেশন।
উদ্বোধনী দিনে দ্বিতীয় বারের মতো ‘এটমেক্সপো অ্যাওয়ার্ডস’ অনুষ্ঠিত হবে। পারমাণবিক শিল্পের উন্নয়নে এবং মানবজাতির কল্যাণে পরমাণু প্রযুক্তির ব্যবহারে বিশেষ ভূমিকার জন্য পরমাণু শক্তি কোম্পানীগুলোকে স্বীকৃতি প্রদান করা হবে। ২০১৮ সালে জনসংযোগ ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার লাভ করে নিউকিয়ার পাওয়ার কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া। প্রতিষ্ঠানটিকে তাদের ‘এটম অন হুইলস’ কর্মসূচির জন্য এই স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। এই কর্মসূচির অধীনে তারা গ্রাম্য জনগোষ্ঠির মাঝে পারমাণবিক শক্তির সুবিধাগুলো তুলে ধরে এবং মানুষের মনে এই প্রযুক্তির ঝুঁকি সম্পর্কে যে ধারণা রয়েছে তা দূরীকরণে কাজ করে।
এটমেক্সপোর পার্টনার- আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি এজেন্সি (আইএইএ), ওইসিডি আণবিক শক্তি এজেন্সি, ওয়ার্ল্ড এসোসিয়েশন অব নিউকিয়ার অপারেটরস (ওয়ানো) এবং ওয়ার্ল্ড নিউকিয়ার এসোসিয়েশন  ফোরাম চলাকালীন বর্তমানে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর বিজনেস সেশন আয়োজন করবে।
গত বছর অনুষ্ঠিত এটমেক্সপোতে ৬৮টি দেশের চার হাজারেরও অধিক প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। অংশগ্রহণকারী  কোম্পানীর সংখ্যা ছিল ৬০০টি। ফোরামের সাইড লাইনে বাণিজ্যিক, পারস্পরিক সহযোগিতা ও অংশীদারিত্ব সংক্রান্ত মোট ৩৯টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।  



কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top