logo
news image

রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পে চিকিৎসক ও নার্স নিয়োগ

অবশেষে দ্রুত রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে কর্মরতদের জরুরী চিকিৎসার জন্য চিকিৎসক ও নার্স নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। প্রকল্পের নিউকিয়ার পাওয়ার প্লান্ট কোম্পানী লিঃ এর অধীনে বুধবার সকালে ৪ জন মেডিকেল অফিসার, ১ জন জনসংযোগ কর্মকর্তা, ১জন ব্যক্তিগত কর্মকর্তা, ৪ জন ষ্টাফ নার্স এবং ৬ মেডিকেল এ্যাসিটেন্ট প্রকল্পের জরুরী চিকিৎসা কেন্দ্রে যোগদান করেছেন। এসময় প্রকল্প পরিচালক ও কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. শৌকত আকবর, কোম্পানীর সচিব আব্দুর রশীদ,সাইট ইনচার্জ রুহুল কুদ্দুসসহ প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, বর্তমানে এই প্রকল্পে ১,৩০০ হতে ১,৪০০ রাশিযান কর্মরত রয়েছে। এছাড়া ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের অধীনে প্রায় তিন সহ¯্রাধিক শ্রমিক কাজ করছে। সরকারের সর্বোচ্চ ব্যয়বহুল এই প্রকল্পের নির্মাণকাজ প্রায় ৩ বছর ধরে চললেও কর্মরতদের জরুরী চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা ছিল না। যদিও অনেক আগেই বলা হয়েছিল জরুরী চিকিৎসা কেন্দ্র খোলা হবে। প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার পর এযাবত ৬-৭ জন রাশিযান নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্র জানা গেছে। এছাড়া নির্মাণ কাজে নিয়োজিত কয়েকজন শ্রমিকের মৃত্যু ঘটলেও তাৎক্ষনিকভাবে চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা এতোদিন ছিল না।
প্রকল্প সূত্র জানায়, চিকিৎসা কেন্দ্রে লোক নিয়োগের জন্য ৫/৬ মাস আগেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল। প্রক্রিয়া শেষ করে নিয়োগ ও যোগদান প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হলো। জানা যায়, এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অন্যান্য পদে নিয়োগ ও যোগদান প্রক্রিয়া অনেক আগেই চুড়ান্ত হয়েছে। শুধু চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়োগের বিষয়টি ঝুলে ছিল। এপর্যায়ে আবারো গত ২৫শে জানুয়ারী শুক্রবার শেরগিন ভ্যাইলি (৫৯) নামের এক রুশ নাগরিকের মৃত্যু হয়। এই মৃত্যু এবং জরুরী চিকিৎসা কেন্দ্র চালু না করা সংক্রান্ত খবর বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশ হলে কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে এবং নিয়োগ ও যোগদান প্রক্রিয়া দ্রুততার সাথে চুড়ান্ত করা হয়।
প্রকল্পের সাইট ইনচার্জ রুহুল কুদ্দুস জানান, ঠিাকাদারী প্রতিষ্ঠান এটমষ্ট্রয় এক্সপোর্টের প্রাশাসনিক ৪ তলা ভবনের নীচ তলায় জরুরী চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন করে অতি জরুরী চিকিৎসা সরঞ্জাম সংস্থাপন করা হয়েছে। এখানেই প্রকল্পে কর্মরতদের জরুরী চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য