logo
news image

মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যার প্রতিবাদে রূপপুরে মানববন্ধন

হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে এলাকাবাসী ও মুক্তিযোদ্ধারা এই কর্মসূচির আয়োজন করে। সকাল ১১টার দিকে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে এলাকাবাসী এবং বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিয়ে কুষ্টিয়া-পাবনা- নাটোর মহাসড়কে অবরোধের সৃষ্টি করে। এসময় পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা হবিবুল ইসলাম হব্বুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের পাবনা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার হাবিবুর রহমান হাবিব, ঈশ্বরদী ইউনিটের সাবেক ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার আব্দুল খালেক, পাকশী ইউনিটের সাবেক কমান্ডার জাহাঙ্গির হোসেন, পাকশী ইউপির চেযারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস, সলিমপুরের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা, পাকশী কলেজের অধ্যক্ষ ইমরুল কায়েস পারভেজ, প্রেসকাবের সভাপতি স্বপন কুমার কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাতেন, শ্রমিক লীগ নেতা জাহাঙ্গির হোসেন, জাসদ নেতা সেলিম প্রমূখ। সমাবেশে বক্তরা বলেন, ৭২ ঘন্টার মধ্যে আসামী গ্রেফতার না হলে ১০ই ফেব্রুয়ারীতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
এই পর্যায়ে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহম্মেদ হোসেন ভূইয়া বিক্ষোভ সমাবেশে সংহতি প্রকাশ এবং মুক্তিযোদ্ধা হত্যার নিন্দা জানিয়ে বলেন, সুষ্ঠু ও নিরেপক্ষ তদন্ত করে দ্রুত প্রকৃত আসামী গ্রেফতার করা হবে। এই পর্যায়ে দেড় ঘন্টা পর অবরোধ তুলে নেয়া হলে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল শুরু করে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার রাত ৯ টার দিকে  পাকশীর রূপপুরে নিজ বাড়িতে ঢোকার মূহুর্তে অন্ধকারে পূর্ব হতে ওঁত পেতে থাকা আততায়ীরা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিম (৭০) কে লক্ষ্য করে ৩টি গুলি বর্ষণ করে দ্রুত পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে ঈশ্বরদী হাসপাতালে এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাত ১০.২৫ মিনিটের সময় এ্যাম্বুলেন্সের মধ্যেই তাঁর প্রাণ বায়ু বেরিয়ে যায়।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য