logo
news image

বকুলকে মন্ত্রী করার দাবিতে লালপুরে মিছিল-সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক।  ।    
শহিদুল ইসলাম বকুলকে মন্ত্রী করার দাবিতে লালপুর ও বাগাতিপাড়ায় প্রতিদিন মিছিল ও সমাবেশ করছেন নেতা কর্মীরা।  এরই অংশ হিসেবে রোববার (৬ জানুয়ারি) সকালে বকুলের একমাত্র সহচর, দুর্দিনের সঙ্গি, উদীয়মান নেতা তোহিদুল ইসলাম বাঘার নেতৃত্বে লালপুরে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।  মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট তাদের একটাই দাবি শহিদুল ইসলাম বকুলকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।
গত বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারি) শপথ গ্রহন করেন নাটোরের চারটি আসনের সংসদ সদস্যরা। এরপর থেকেই মন্ত্রীত্ব পাওয়া নিয়ে জোর লবিং শুরু করেছেন তারা। এরই মধ্যে অনেক সংসদ সদস্য নিজের জনমত গঠনের জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের ঢাকায় ডেকেছেন। ফেসবুকে ঝড় উঠছে মন্ত্রীত্ব নিয়ে। সংশ্লিস্ট এলাকার দলীয় নেতা-কর্মীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তুলছেন মন্ত্রী দেখা নিয়ে। মন্ত্রীসভায় ঠাই পাওয়া নিয়ে যাদের স্বপ্ন, তারা অবশ্যই নিজের মুখে মন্ত্রীত্বের ইচ্ছা প্রকাশ করছেন না। এরই মধ্যে অনেকের নাম পত্র-পত্রিকায় উঠে এসেছে। তবে এমপিদের হয়ে এলাকাবাসী বা স্থানীয় নেতা-কর্মীরা মন্ত্রীত্বের দাবিতে সোচ্চার হচ্ছেন।
নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদকে টপকিয়ে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে চকম দেখান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুল। অবহিলত বাগাতিপাড়া উপজেলা থেকে ১৯৭৩ পরবর্তী ৪৬ বছর পর নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেন তিনি। তাই এলাকাবাসীর দাবী উঠেছে বকুলকে মন্ত্রীসভায় ঠাই দেওয়ার জন্য।
লালপুর-বাগাতিপাড়া নিয়ে গঠিত আসনে এই প্রথমবারের মত জনগনের প্রত্যক্ষভোটে আওয়ামী লীগের প্রথম এমপি হিসেবে শহিদুল ইসলাম বকুল নির্বাচিত হয়েছেন। এক সময়ের বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত এ আসনে সদ্যসমাপ্ত নির্বাচনে ২ লাখ ৪৬ হাজার ১৪০ ভোট পেয়ে এবার আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বকুল বিজয়ী হয়ে আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে প্রমাণ করেছেন।
এবারের উদ্যমী মন্ত্রী পরিষদে দুই উপজেলার দলীয় নেতাকর্মী, সুধীমহল ও সাধারণ ভোটাররা শহিদুল ইসলাম বকুল এমপিকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান।
বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আবুল হোসেন বলেন, নাটোর-১ আসনের সর্বস্তরের জনগনের প্রাণের দাবি একজন মন্ত্রী। নাটোর জেলার সব উপজেলা থেকে মন্ত্রী হলেও মন্ত্রী বঞ্চিত উপজেলা বাগাতিপাড়া থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগের প্রথম এমপিকে এবার মন্ত্রী করার দাবি উঠেছে। আমরা বাগাতিপাড়া ও লালপুরবাসী প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রত্যাশা রাখি এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত ত্যাগী সৈনিক এমপি বকুলকে মন্ত্রী পরিষদের সদস্য হিসেবে দেখতে চাই।
তবে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, মন্ত্রী সভায় ঠাই পাওয়ার জন্য শহিদুল ইসলাম বকুল জোর লবিং করে যাচ্ছেন। প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তিনি ইতোমধ্যে বিষয়টি প্রধান মন্ত্রীর কাছে জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী এক নামে বকুলকে চিনেন এবং জানেন বলেই, মন্ত্রী সভায় সে ঠাই পেতে পারে বলে দাবী সূত্রটির। তবে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় এটা নিয়েই তাকে সন্তোষ্ট থাকা লাগতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য