logo
news image

নর্থবেঙ্গল সুগারমিল শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের কর্ম বিরতি শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার লোকমানপুরে কৃষ্ণা কৃষি খামারসহ নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের আটটি কৃষি খামারের শ্রমিকরা মজুরি বৃদ্ধিসহ সাত দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছে । শনিবার সকালে নিজ নিজ খামারে শ্রমিকরা কোদাল, কাস্তে নিয়ে অবস্থান নিয়ে এ কর্মবিরতি শুরু করে। এর আগেও গত ডিসেম্বর মাসে দু’দফা একই দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভসহ বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছিল এসব শ্রমিকরা।
এদিকে কর্মবিরতির কারনে কৃষি খামারের কাটা আখ সুগার মিলে পৌছানো যায়নি। ফলে কেটে রাখা আখ মাঠেই শুকিয়ে যাচ্ছে।
শ্রমিক ঐক্য কমিটির সাধারন সম্পাদক ডব্লিউ শামসুল আলম বিপ্লব জানান, দীর্ঘদিন থেকে চলমান আন্দোলনের মুখে গত বছর ২২ নভেম্বর বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন জন প্রতি দৈনিক মাত্র ৫০ টাকা হারে বাড়িয়ে মজুরি পুনঃ নির্ধারন করেছে। এতে হাল্কা কাজের জন্য প্রতিদিন ২০০ টাকার পরিবর্তে ২৫০ টাকা এবং ভারি কাজের জন্য ২১০ টাকার পরিবর্তে ২৬০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু বর্তমান শ্রমবাজারে সাধারন শ্রমিক ও সরকারী অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের মজুরির তুলনায় তা অনেক কম। ফলে তারা ওই পরিমান বৃদ্ধি প্রত্যাখান করে নতুনভাবে মজুরি পুনঃ নির্ধারণ করে ৪৫০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা করার দাবি জানান। এছাড়াও শ্রমিকদের ছুটির সুবিধা, নর্থ বেঙ্গল শ্রমিক ইউনিয়নে কৃষি খামারে এসব শ্রমিকদের পূর্বের ন্যায় ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়াসহ সাত দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য আটটি কৃষি খামারে কর্মবিরতি শুরু করেছেন বলে জানান।  এর আগে একই দাবিতে গত ১ ডিসেম্বর  ১৫ দিনের আলটিমেটাম দেয় ওই আট কৃষি খামারের দৈনিক শ্রমিক ঐক্য কমিটি। পরে ৯ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দফায় মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ করে দাবি মানা না হলে লাগাতার কর্মবিরতির ঘোষনা করেছিল শ্রমিক ঐক্য কমিটি।
লোকমানপুর কৃষ্ণা কৃষি খামার প্রধান খাইরুজ্জামান বলেন, শ্রমিকদের লাগাতার কর্মবিরতি শুরুর কারনে তার খামারের মাঠে কেটে রাখা প্রায় দু’শ টন আখ সুগার মিলে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি। তিনি বিষয়টি উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। 

সাম্প্রতিক মন্তব্য