logo
news image

কাদের খান আর নেই

বিনোদন ডেস্ক।  ।  
বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা কাদের খান (৮১) আর নেই। কানাডার একটি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। বিকেলেই তিনি কোমাতে চলে যান। দীর্ঘদিন ধরে তিনি অসুস্থ। ১৭ সপ্তাহ ধরে তিনি হাসপাতালেই ছিলেন। মঙ্গলবার (১ জানুয়ারি) সকালে কাদের খানের মৃত্যুসংবাদ বলিউডে দ্রুত জানাজানি হয়। এরপর বলিউডজুড়ে নেমে আসে শোকের ছায়া। বলিউডের অনেক তারকাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রয়াত এ অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জানিয়ে পোস্ট দিয়েছেন।
অমিতাভ বচ্চন টুইটারে লিখেছেন, ‘কাদের খান চলে গেলেন। খুবই দুঃখের খবর। আমার প্রার্থনা ও সান্ত্বনা রইল। অসাধারণ একজন স্টেজ আর্টিস্ট আর খুব ভালো একজন অভিনেতা ছিলেন। আমরা অনেক ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছি। খুব ভালো একজন সহ-অভিনেতা। দক্ষ একজন লেখক, আর তিনি গণিত বিশেষজ্ঞও ছিলেন!’
অনুপম খের লিখেছেন, ‘কাদের খান আমাদের দেশের একজন সূক্ষ্ম অভিনেতা। সেটে তাঁর সঙ্গে কাজ করে অনেক কিছু শিখেছি। খুব ভালো লেখক ছিলেন। তাঁকে খুব মিস করব।’
অসুস্থ কাদের খানের সঙ্গে নিজের একটি ছবি দিয়ে টু্ইটারে মধুর ভান্ডারকর লিখেছেন, ‘এমন একজন প্রতিভাবান লেখক, অভিনেতা আর কমেডিয়ানের মৃত্যুর খবর খুবই দুঃখজনক। তিনি একই সঙ্গে আমাদের কাঁদিয়েছেন আবার হাসিয়েছেন। তাঁর সংলাপ সব সময় আমাদের মনোরঞ্জন করেছে।’
স্মৃতি ইরানি লিখেছেন, ‘আপনি যদি গত শতকের আশি কিংবা নব্বই দশকের দর্শক হন এবং ওই সময়ের হিন্দি ছবি দেখে থাকেন, তাহলে কাদের খানের অভিনয়ের জাদু অবশ্যই দেখেছেন। তাঁর সঙ্গে দেখা করার সৌভাগ্য কখনো হয়নি। কিন্তু যদি কখনো দেখা হতো, তাহলে বলতাম, আমাদের হাসানোর জন্য ধন্যবাদ, আপনার মতো শিল্পের কারিগরকে ধন্যবাদ।’
অর্জুন কাপুর লিখেছেন, ‘একজন অভিনেতা, একজন লেখক, যাকে দিয়ে একটি প্রজন্ম বোঝায়। ইন্ডাস্ট্রিতে এই শূন্যতা কখনোই পূরণ হবে না।’
মনোজ বাজপেয়ি লিখেছেন, ‘কাদের খানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। আপনাকে মিস করব।’
বরুণ ধাওয়ান লিখেছেন, ‘কাদের খান ছিলেন আমার অন্যতম আদর্শ।’
সাধারণ দর্শকেরাও টুইটারে লিখছেন। তেমনি একজন দর্শক লিখেছেন, ‘হিন্দি চলচ্চিত্র জগতের আরও এক নক্ষত্রের পতন হলো। কাদের খানের মৃত্যু চলচ্চিত্র জগতের অপূরণীয় ক্ষতি। সেই ক্ষতিপূরণ কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তাঁর কাজ, তাঁর অভিনয় দর্শকমনে তাঁকে চিরদিন বাঁচিয়ে রাখবে।’
এদিকে কাদের খানের ছেলে সরফরাজ খান বার্তা সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, ‘বাবা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। কানাডার সময় অনুযায়ী ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ছয়টায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি বিকেলেই কোমাতে চলে যান। দীর্ঘদিন ধরে তিনি অসুস্থ। ১৭ সপ্তাহ ধরে তিনি হাসপাতালেই ছিলেন।’ হিন্দি চলচ্চিত্রের প্রখ্যাত অভিনেতা কাদের খান (৮১) মারা গেছেন। কানাডার একটি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। স্ত্রী শশিতাকে নিয়ে সরফরাজ খান কানাডায় আছেন। কাদের খানও দীর্ঘদিন তাঁদের কাছেই ছিলেন। মৃত্যুকালে কাদের খান স্ত্রী হাজরা, তিন ছেলে ও তাঁদের স্ত্রী এবং নাতি-নাতনি রেখে গেছেন।
কাদের খানের দাফনের ব্যাপারে সরফরাজ খান বলেন, ‘মুম্বাই নয়, বাবাকে কানাডার টরন্টোতেই দাফন করা হবে। এখানে আমাদের পুরো পরিবার রয়েছে। আমরা সবাই এখানেই থাকি। তাই বাবার শেষ কাজও এখানেই হবে।’
সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সরফরাজ খান বলেন, ‘বাবার অসুস্থতার খবর পেয়ে তাঁর ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষীরা যেভাবে সব সময় আমাদের পরিবারের পাশে থেকেছেন, আমাদের মনোবল জুগিয়েছেন, এ জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।’
পিটিআই আগেই জানিয়েছে, কাদের খান শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। চিকিৎসকেরা তাঁকে নিয়মিত ভেন্টিলেটর থেকে বাইপ্যাপ ভেন্টিলেটরে স্থানান্তরিত করেন। দুই দিন আগে জানা যায়, তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। এই পুরো সময়টা কাদের খানের ছেলে সরফরাজ আর তাঁর স্ত্রী হাসপাতালেই ছিলেন।
আগেই জানা গেছে, কাদের খান অনেক দিন থেকেই প্রোগ্রেসিভ সুপ্রানিউক্লিয়ার পলসিতে (পিএসপি) ভুগেছিলেন। এ সমস্যায় রোগীরা স্বাভাবিক ভারসাম্য ও স্মৃতি হারিয়ে ফেলেন। পিএসপির কারণে তিনি বাক্‌শক্তি হারিয়ে ফেলেন। ২০১৫ সালে মুম্বাইয়ে তাঁর হাঁটুতে একটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।
কাদের খানের জন্ম আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে। বলিউডে ৩০০ ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। ২৫০টি ছবির সংলাপ লিখেছেন। রাজেশ খান্না অভিনীত ‘দাগ’ ছবি দিয়ে ১৯৭৩ সালে বলিউডে অভিনয়জীবন শুরু করেন কাদের খান।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top