logo
news image

নাটোর-১ ভোটের মাত্র ৩ দিন আগে মাঠে নামলেন বিএনপির প্রার্থী কামরুন নাহার শিরিন


নিজস্ব প্রতিবেদক:
নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতীপাড়া) আসনে মাঠে সবাই ছিল, ছিল না শুধু বিএনপির প্রার্থী শিরিন। নানা চড়াই উৎরাই পার হয়ে অবশেষে ভোটের মাত্র ৩ দিন আগে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা প্রয়াত সাবেক প্রতিমন্ত্রী স্বামী ফজলুর রহমান পটল এর কবর জিয়ারত করে মাঠে নামলেন বিএনপির (ধানের শীষ) প্রার্থী অধ্যক্ষ (অব:) কামরুন নাহার শিরিন।
সূত্রে জানাযায়, এ আসনে ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তারা হলেন, আ.লীগের শহিদুল ইসলাম বকুল (নৌকা), বিএনপি’র অধ্যক্ষ কামরুন নাহার শিরিন (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির আবু তালহা (লাঙ্গল), বাংলাদেশের বিপ¬বী ওয়ার্কাস পার্টির মো. আনছার আলী (কোদাল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. খালেকুজ্জামান (হাতপাখা) এবং বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. মাকসুদুর রহমান (হারিকেন)।
লালপুর-বাগাতিপাড়া দুইটি উপজেলা নিয়ে গঠিত নাটোর-১ আসন। এই আসনে মোট ৩ লক্ষ ১১ হাজার ৯২৫ জন ভোটার, ভোট কেন্দ্র ১২৫ টি। পুরুষ ভোটার ১ লক্ষ ৫৬ হাজার ৫৬৬ জন এবং ১ লক্ষ ৫৫ হাজার ৩৫৯জন মহিলা ভোটার ভোট দেবেন। বিএনপি এতদিন মাঠে না থাকার কারণ বিএনপি থেকে নির্বাচনের জন্য প্রয়াত সাবেক প্রতিমিন্ত্রী ফজলুর রহমান পটলের সহধর্মীনি অধ্যক্ষ কামরুন নাহার শিরিনকে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচনের টিকিট দেওয়া হয়। কিন্তু মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনের মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অধ্যক্ষ কামরুন নাহান শিরিনকে বাদ দিয়ে ঐক্যফ্রন্টের কৃষক-শ্রমিক জনতালীগের প্রার্থী মুনজুরুল ইসলাম বিমলকে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এরপর তিনি মাঠে ধানের শীষ নিয়ে কাজও শুরু করেন।
অধ্যক্ষ কামরুন নাহার দলের এই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে তিনি হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন। রিট আবেদনের শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ অধ্যক্ষ কামরুন নাহার শিরিনকে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন দিতে আদেশ দেন। এমতাবস্থায় মুনজুরুল ইসলাম বিমল উচ্চ আদালতে আপীল করেন । আপীল শুনানীতে সুপ্রীম কোর্ট হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন।
প্রার্থীতা নিয়ে নানা জটিলতা কাটিয়ে এবং নানা চড়াই উৎরাই পার হয়ে অবশেষে বুধবার উপজেলার গৌরীপুর এলাকায় প্রচারণা শুরু করেন। প্রচারণা কালে উপস্থিত ছিলেন লালপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান  হারুনার রশিদ পাপ্পু, গোপালপুর পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র ও নজরুল ইসলাম মোলাম, সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফজলুর রহমান পটলের মেয়ে ব্যারিষ্টার ফারজানা শারমিন পুতুল ও ছেলে ডাক্তার ইয়াসির আরশাদ রাজনসহ দলীয় নেতাকর্মী।
লালপুর উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও লালপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুনর রশিদ পাপ্পু জানান, বুধবার (২৬ ডিসেম্বর) নেতা-কর্মীরা প্রয়াত সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফজলুর রহমান পটল এর কবর জিয়ারত করে প্রার্থীর নিজ গ্রাম গৌরীপুর থেকে পায়ে হেঁটে প্রচারণা শুরু করেন অধ্যক্ষ (অব:) কামরুন নাহার শিরিন ।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য