logo
news image

চলে গেলেন টুটুল

বিনোদন প্রতিবেদক।  ।  
অভিনয়শিল্পী এবং ছোট ও বড় পর্দার বরেণ্য নির্মাতা ও চিত্র সম্পাদক সাইদুল আনাম টুটুল আর নেই। মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুর তিনটা ১০ মিনিটে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) । এ সময় পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী মোবাশ্বেরা খানম। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। তিনি স্ত্রী ও দুই মেয়ে রেখে গেছেন। হাসপাতাল থেকে সাইদুল আনাম টুটুলের ভাতিজা সামিউল আনাম প্রথম আলোকে এই মৃত্যু সংবাদ নিশ্চিত করেছেন। পাশাপাশি হাসপাতালের কাস্টমার কেয়ার থেকেও তা নিশ্চিত করা হয়েছে।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তাঁর দুই মেয়ে ঐশী আনাম ও অমৃতা আনাম এখন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী। গতকাল সোমবার বড় মেয়ে ঐশী আনাম দেশে ফিরেছেন। আগামীকাল বুধবার ছোট মেয়ে অমৃতা আনাম দেশে ফেরার পর সাইদুল আনাম টুটুলকে দাফন করা হবে।
গত শনিবার রাতে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। এরপর তাঁকে ল্যাবএইড হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসক তাঁকে দ্রুত হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি করেন। এরপর তাঁকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়।
২০১৭-১৮ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে ‘কালবেলা’ ছবিটি পরিচালনা করছিলেন সাইদুল আনাম টুটুল। আইন ও সালিস কেন্দ্র থেকে প্রকাশিত ‘নারীর ৭১ ও যুদ্ধপরবর্তী কথ্য কাহিনি’ বই থেকে ‘কালবেলা’ ছবির গল্প নেওয়া হয়েছে। ছবিটি প্রযোজনা করছে সাইদুল আনাম টুটুলের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘আকার’। এর আগে সরকারি অনুদানে নির্মিত সাইদুল আনাম টুটুলের প্রথম ছবি ‘আধিয়ার’ মুক্তি পায় ২০০৩ সালে। ১৯৭৯ সালে ‘সূর্যদীঘল বাড়ী’ চলচ্চিত্রে কাজ করে শ্রেষ্ঠ চিত্র সম্পাদক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান তিনি।
সাইদুল আনাম টুটুল ডিরেক্টরস গিল্ডের প্রথম সাধারণ সম্পাদক ও আজীবন সদস্য। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে ‘ঘুড্ডি’, ‘দহন’, ‘দীপু নাম্বার টু’ ও ‘দুখাই’র মতো সিনেমার সঙ্গে রয়েছে তাঁর সংশ্লিষ্টতা। এই ছবিগুলোর সম্পাদনা করেছেন তিনি। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top