logo
news image

পরমাণু প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন যুবরাজ সালমান

অনলাইন ডেস্ক।  ।  
প্রথমবারের মতো পরমাণু প্রকল্প চালু করছে সৌদি আরব।  সোমবার (৫ নভেম্বর) একটি চুল্লির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন দেশটির যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। তবে চুল্লিটি গবেষণার কাজে ব্যবহৃত হবে বলে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
সোমবার মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদির কিং আবদুল আজিজ সিটি ফর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি সফরে গিয়ে মোট সাতটি প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন। এগুলোর মধ্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানি, পরমাণু জ্বালানি, পানির লবণাক্ততা দূরীকরণ, জেনেটিক মেডিসিন ও উড়োজাহাজের নকশাশিল্পও রয়েছে। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলো পরমাণু গবেষণা চুল্লি ও বিমান শিল্প উন্নতকরণ বলে দেশটির সরকারি গণমাধ্যম জানিয়েছে। সৌদি আরবের বিকাশমান পরমাণুশিল্পের প্রযুক্তি উন্নয়নে গবেষণার জন্য এ চুল্লি সহায়ক হবে বলে দেশটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে।
জ্বালানির জন্য আপাতত দুটি পরমাণু বিদ্যুৎ চুল্লি নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে রিয়াদ। আর ২৫ বছরের মধ্যে নির্মাণ করা হবে ১৬টি চুল্লি। আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের সহায়তায় কিং আবদুল আজিজ সিটি ফর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির বিজ্ঞানীরা এ পরমাণু চুল্লির পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছেন। চুল্লির নির্মাণকাজ চলছে, চলতি বছরের শেষে কাজ সম্পন্ন হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদির কিং আবদুল আজিজ সিটি ফর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ঘুরে দেখছেন। ছবি: এসপিএযুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদির কিং আবদুল আজিজ সিটি ফর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ঘুরে দেখছেন। ছবি: এসপিএআন্তর্জাতিক পারমাণবিক জ্বালানি সংস্থার নিরাপত্তা মান রক্ষা করেই এ পরমাণু চুল্লি নির্মাণ করবে সৌদি আরব। ২.১ শতাংশ ইউরেনিয়াম অক্সাইড জ্বালানি সমৃদ্ধকরণের পরিকল্পনা থেকে চুল্লিটি নির্মাণ করা হচ্ছে।
সৌদি আরবের পারমাণবিক বোমা তৈরির কোনো পরিকল্পনা নেই বলে মার্কিন গণমাধ্যম সিবিএসকে জানিয়েছিলেন সৌদি আরবের একজন কর্মকর্তা।
ইরানের হুমকি মোকাবিলায় নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে গত মার্চে পরমাণু অস্ত্র নির্মাণ কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দিয়েছিলেন মোহাম্মদ বিন সালমান। তবে ইরান যদি বোমা বানায়, তাহলে তৎক্ষণাৎ পারমাণবিক বোমা তৈরি করা হবে—সেই সময় বলেছিলেন যুবরাজ সালমান। তথ্যসূত্র: আল-জাজিরা

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top