logo
news image

উদীচী মানবতার জন্য অবিরাম কাজ করে এসেছে-সংষ্কৃতিমন্ত্রী নূর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা।  ।  
সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, সংস্কৃতি জাগরণের মধ্যদিয়ে বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক, আধুনিক ও মানবিক বাংলাদেশ গড়ার কাজ করছে। এই কাজে আমাদের সাথে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীও রয়েছে।
তিনি বলেন, উদীচী গত পঞ্চাশ বছরে এ জাতির প্রগতিধারার শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা, রাজনীতি ও মানবতার জন্য অবিরাম কাজ করে এসেছে। তিনি উদীচীর প্রতিষ্ঠাতা সত্যেন সেনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, এই সংগঠনটির মূল কর্ম হচ্ছে গণমানুষ। এ কারণে উদীচী কখনও মানুষের পক্ষ থেকে বিচ্যুত হয়নি। স্বাধীনতা সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে আজও পর্যন্ত সংগঠনটি গণমানুষের কাছে থেকেই কাজ করছে।
সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর শনিবার (২৭ অক্টোবর) সকালে কেন্দ্রী শহীদ মিনারে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সুবর্ণ জয়ন্তী সমাপনী পর্বের তিন দিনব্যাপী আয়োজনের উদ্বোধীন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি ড. সফিউদ্দিন আহমেদ।
জাতীয় সংগীত পরিবেশন, জাতীয় পতাকা ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের সময় অনুষ্ঠান যৌথভাবে উদ্বোধন করেন উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সাবেক সভাপতি অধ্যাপিকা পান্না কায়সার, সৈয়দ হাসান ইমাম, গোলাম মোহাম্মদ ইদু ও কামাল লোহানী । পরে উদীচী সংগীত, সংগঠনের ৫০ বছর উপলক্ষে শংকর শাওজালের পরিচালনায় গীতিনাট্য পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানে উদীচীর প্রতিষ্ঠার পর থেকে গত পঞ্চাশ বছরের বিভিন্নি কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, প্রবীণ-নবীন শিল্পীরা এবং রাজনীতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবন্দ উপস্থিত ছিলেন।
রাজধানী ঢাকা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা উদীচীর কমিটির শত শত নেতা ও শিল্পীরা এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শহীদ মিনার থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে টিএসসি, শাহবাগ হয়ে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে এসে শেষ হয়। পরে শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত স্থানে দ্বিতীয় অধিবেশনে আলোচনায় অংশ নেন উদ্বোধকরা ছাড়াও খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারপার্সন অধ্যাপক মাহফুজা খানম, গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ফকীর আলমগীর, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, পথনাটক পরিষদের সভাপতি মান্নান হীরা ও বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারন সম্পাদক আহকামউল্লাহ।
সন্ধ্যায় রয়েছে বিভিন্ন দেশের অতিথিদের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন, সম্মাননা স্বারক প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আগামীকাল ২৮ অক্টোবর এবং ২৯ অক্টোবর দুদিন সংগঠনের সাবেক সাধারণ সম্পাদকরা এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা বক্তব্য এবং আমন্ত্রিত শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করবেন।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top