logo
news image

বাঘায় ভাঙলো উন্নয়ন মেলা

 নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা (রাজশাহী)।  ।  
দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডের সঙ্গে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে সরকারি-বেসরকারি ও আধা সরকারি সংস্থার উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে তিন দিনের উন্নয়ন মেলা শেষ হয়েছে শনিবার (৬ অক্টোবর)। আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরন শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটে এ মেলার। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয় তিন দিনব্যাপী ‘উন্নয়ন মেলা ২০১৮’। মেলায় বিভিন্ন বিভাগের ৫০টিরও বেশি স্টল সাজিয়ে বসেন এ মেলায়।“বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টগুলো সরকারের গৃহিত উন্নয়ন কার্যক্রম তাদের নিজ নিজ ষ্টল থেকে মেলায় আগত দর্শণার্থীদের সামনে উপস্থাপন করেন।
রাজশাহীর বাঘায় উপজেলা প্রশাসন উপজেলা চত্বরে মেলার আয়োজন করে। মেলার সমাপনী দিনে পুরুস্কার বিতরন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল,অফিসার ইনচার্জ মহসীন আলী,উপজেলা আ’লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ নছিম উদ্দীন,সাংগঠনিক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ ওয়াহেদ সাদিক কবির, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রয়েজ উদ্দীন প্রমুখ। বক্তারা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড আরো বেগবান করতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার শাহিন রেজা। নির্বাহি অফিসার বলেন, ‘ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত ‘উন্নত বাংলাদেশ’ গঠনে সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সেগুলো জনগণকে অবহিত করতে এবং তার সাথে জনগণকে একাত্ম করতেই আমাদের এ আয়োজন।” প্রতিটি বিভাগ যে সেবাগুলো অফিস থেকে দিয়ে থাকে তা তাৎক্ষণিকভাবে এ মেলা থেকেই তুলে ধরা হয়েছে।” অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ। মেলা প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা যায়,পদ্মা সেতুর আদলে তৈরি করা মেলার মূল গেট। গেটের প্রারম্ভে প্রধান মন্ত্রীর উন্নয়ন কার্যক্রম ও বিভিন্ন সময়ে প্রাপ্ত আর্ন্তজাতিক পুরুস্কারের ব্যানার। সীমানা প্রাচীরসহ আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগ আলাদা আলাদা ব্যানারে। ষ্টলের প্রবেশদ্বার সাজানো হয় বেলুন দিয়ে। প্রতিকী বৈদ্যুতিক টাওয়ারের মাধ্যমে তৈরি করা হয় সভামঞ্চ। মেলা প্রাঙ্গন সাজানো হয় ১২টি বিল বোর্ড দিয়ে। ‘উন্নয়নের অভিযাত্রায় অদম্য বাংলাদেশ” এ শ্লোগানে রাজশাহীর বাঘায় আয়োজন করা হয় উন্নয়ন মেলার। সংশ্লিষ্টরা জানান, তিনদিন ব্যাপি এ মেলার প্রথম দিনে, বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মাধ্যমে শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০ টায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন ঘোষনা করা হয় মেলার। পরে বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও আজেকের বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা সভা, সরকারি দপ্তরের উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের ওপর ভিডিও প্রদর্শনী, বিকেল ৫টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দ্বিতীয় দিন শিক্ষিত জাতি,সমৃদ্ধ বাংলাদেশ,শেখ হাসিনার বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা সভা, সরকারি দপ্তরের উন্নয়ন তথ্য চিত্র প্রদর্শন। বিকেল ৪টায় প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ছাত্র-ছাত্রীদের কুইজ প্রতিযোগিতা ও বিকাল ৫টায় সাংস্কৃতিক ও গম্ভীরা অনুষ্ঠান এবং মেলার শেষ দিন শনিবার উপজেলা পর্যায়ের সব দপ্তরের বিভিন্ন সেবার তথ্য প্রদর্শন, বিকেল ৩টায় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০ টি বিশেষ উদ্যোগ ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য শীর্ষক আলোচনা সভা, বিকাল ৫টায় আলোচনা সভা শেষে বিভিন্ন দপ্তরের ষ্টল ও কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহনকারিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সন্ধ্যার পর থেকে শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য