logo
news image

বাগাতিপাড়ায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল কলেজ ছাত্রী আবিদা সুলতানা মিতা (১৭) নামের এক কিশোরী। সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন বানুর নির্দেশে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেরিনা সুলতানা ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা খাতুন বিয়ে বাড়িতে গিয়ে এ বিয়ে বন্ধ করেন।জানা গেছে, আবিদা সুলতানা মিতা উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চকগোয়াশ গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে। সে বাগাতিপাড়া মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।
মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা খাতুন জানান, আবিদা সুলতানা মিতার বিয়ে পার্শ্ববর্তী উপজেলার বনপাড়ার বাইমেল গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে মাসুদ আলীর সঙ্গে ঠিক করেন তার পরিবারের লোকজন। সোমবার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। সে উপলক্ষে কনের বাড়িতে রান্না-বান্নাসহ সকল আয়োজন সম্পন্ন হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন বানু গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়ের খবরটি জানতে পারেন। এরপর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেরিনা সুলতানা ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাবিবা খাতুন বিয়ে বাড়িতে গিয়ে কনের বাবা-মা এবং পরিবারের সকলকে বাল্য বিয়ের কুফল সম্পর্কে অবহিত করলে তারা মেয়ের বিয়ে ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত দিবে না বলে মুচলেকা দেন। তারপর ঘটনাটি বর পক্ষকেও জানানোর ব্যবস্থা করেন হাবিবা খাতুন।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য