logo
news image

অন্ধকারের যাত্রী চার বোন

মোঃ আলী আশরাফ ভূঞা
'দস্তার চেয়েও সস্তা যে বস্তার চেয়েও ভারী। মানুষ হয়েও সঙের পুতুল বঙ্গ দেশের নারী'। (জনৈক মনীষী)
ঊনচল্লিশ বর্ণ বা চৌদ্দ শব্দের অাক্ষেপ পূর্ণ এ পংক্তিটি আজকাল অচল প্রায়। কারন প্রযুক্তির উৎকর্ষতার সাথে তাল মিলিয়ে বীরদর্পে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলার নারীরা। কোথাও পিছিয়ে নেই তারা। বিশেষ - বিশেষ ক্ষেত্রে পুরুষদের চেয়েও এগিয়ে। নারীরা অাজ স্বাবলম্বী হচ্ছেন। অাত্মমর্যাদাবোধ নিয়ে বড় -বড় কাজ করছেন। পরিচালনা করছেন রাষ্ট্র। সামলাচ্ছেন সংসার। এগুলো অামাদের প্রেরনার গল্প। অালোর গল্প। অালো - অন্ধকার পাশাপাশি থাকে এটা সত্যউপলব্ধি। কিছু নারী অন্ধকার পথ বেছে নিয়েছেন অালো ঝলমল জীবন কাটাবেন বলে। কয়েকদিন অাগে বগুড়ায় গ্রেফতারকৃত ইয়াবা সুন্দরী চার বোনের গল্প একথাটিই মনে করে দেয়। বিলাস বহুল ফ্লাটে তারা পেশা হিসাবে ইয়াবা ব্যবসা করতেন। চার জনে ভাড়া নিয়েছিলেন বিভিন্ন বিল্ডিংয়ের আলাদা আলাদা ফ্লাট। তাদের কাছে পাওয়া গেল ২১০০ পিচ ইয়াবা। তাদের বয়স যথাক্রমে অাটাশ ; পচিশ ; তেইশ ; বিশ। এ বয়স তারুণ্যের। এ বয়স স্বপনের ; জেগে ওঠার ; সাফল্যের পথে হাঁটবার। এক একজন নারী এক একটি পরম প্রশান্তির অাশ্রয়। নারীর মূল্যবোধ প্রকারন্তে পুরুষের ভিতর প্রবাহিত হয়। সারাদিনের পরিশ্রান্ত দেহ- মন এক মুহূর্তে সতেজ ; তাজা ও ফুরফুরে হয়ে যায় নারীর সংস্পর্শে। নারী শক্তির উৎস। প্রেরনার উৎস। মমতাময়ী নারীর হাত ধরেই সভ্যতার ক্রমবিকাশ। পৃথিবীর সাফল্যের গল্পগুলোতে নারীর হাতের ছোঁয়া চিরন্তন। নারীর কথার প্রেরণা কেবল কথা নয়; অক্সিজেন। অাটাশ; পচিশ; তেইশ ; বিশ বছরের তরুণীরা দেখছে বিলাসী জীবন। টাকার বাহারী রঙ। কিন্তু দেখছেনা এসবের বাইরেও নান্দনিক ; উপভোগ্য যাপিত জীবন।একজন রিক্সাওয়ালা ; পানের দোকানদার ; চায়ের দোকানদারও কি দারুণ জীবন যাপন করেন তাদের সারাদিনের পরিশ্রমের টাকায়! তাদের স্ত্রীরা দারুণ খুশি থাকেন। তাদের হাসি মুখে ঝিলিক দেয় স্বর্গীয় সুখের অাভা। অামার শ্রদ্ধা সেইসব নারীদের প্রতি যারা অল্পেও সন্তুষ্ট থাকেন। অার নিজের স্বক্ষমতায় সঠিক জীবনযাপন করেন। পরিশ্রান্ত স্বামীটির জন্য ভাত রান্না করে অপেক্ষা করে বসে থাকার মধ্যেও জীবনের গভীর নীরবতা অাছে। একবার সঠিক জীবন যাপন করে দেখুন জীবনের কি স্বর্গীয় সুখানুভূতি ।
নারী একটি সাফল্যের গল্প হোক। মানুষ হিসাবে এটা অামাদের চূড়ান্ত চাওয়া। নারী ঘরে বাইরে দাপিয়ে বেড়াক ; কাজ করুক বীরদর্পে সেখানে অামাদের পূর্ণ সহযোগিতা থাকবে- থাকবে অনুপ্রেরণা কিন্তু ইয়াবা সুন্দরীখ্যাত ; গাজা ব্যবসায়ী নারীরা অামাদের উঁচু মাথাটা নিচু করে দেয়। নারী কারও মা ; কারও বোন ; কারও স্ত্রী কারও প্রেমিকা প্রিয়তমা ...... ........... নারীর প্রতি অামাদের শ্রদ্ধাবোধ অাছে কিন্তু যখন দেখি নারীরা এইসব অসামাজীক ; অবৈধ কাজে যুক্ত কেবলমাত্র ভোগ ও বিলাসী জীবন যাপনের জন্য তখন লজ্জা হয় - এ লজ্জা অামাদের সবার। নারী সত্যিকার মানুষ হোক। ভাল কাজ করুক। ভালোবাসা অার প্রেরণায় ভরে তুলুক অামাদের পৃথিবী...... নারী শক্তির জয় হোক। মানবতার জয়গান করুক নারীরা।
* মোঃ আলী আশরাফ ভূঞা, বিপিএম, পুলিশ সুপার, বগুড়া। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top