logo
news image

ইউএস-বাংলার বহরে যুক্ত হচ্ছে নতুন দুটি বোয়িং

অর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক।  ।  
ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বহরে চলতি বছরের নভেম্বর মাসে দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট সংযোজিত হতে যাচ্ছে। বর্তমানে ইউএস-বাংলার বহরে ১৬৪ আসনের ৪টি বোয়িং ও ৭৬ আসনের তিনটি ড্যাশসহ সাতটি এয়ারক্রাফট রয়েছে। সংযোজনের অপেক্ষায় থাকা নতুন দু‘টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এ ৮টি বিজনেস ক্লাস ও ১৫৯টি ইকোনমিক ক্লাসের আসনসহ ১৬৭টি আসন রয়েছে।
শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর)  ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স জানায়, আগামী নভেম্বর মাসের প্রথম ও তৃতীয় সপ্তাহে পর্যায়ক্রমে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের পঞ্চম ও ষষ্ঠ বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট বিমান বহরে যুক্ত হতে যাচ্ছে। নতুন বোয়িং ইউএস-বাংলার বহরে যুক্ত হতে যাওয়ায় বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা দ্রুততম সময়ে বাস্তবায়ন করা সহজ হবে।
এছাড়া বর্তমানে পরিচালিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট সংখ্যা বৃদ্ধি করারও পরিকল্পনা রয়েছে।
বাংলাদেশের অন্যতম বেসরকারী বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু করে। ঢাকা থেকে যশোরে  দু’টি ড্যাশ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ইউএস-বাংলা ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে।
ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স বর্তমানে সপ্তাহে প্রায় ৩০০টির অধিক অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। যাত্রা শুরু করার পর চার বছরে প্রায় ৪৫ হাজার এর অধিক ফ্লাইট পরিচালনা করেছে, যা বাংলাদেশে বিমান চলাচলের ইতিহাসে একটি রেকর্ড। বর্তমানে ইউএস-বাংলা আন্তর্জাতিক রুট সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর, ব্যাংকক, গুয়াংজু, মাস্কাট, দোহা ও কলকাতাসহ অভ্যন্তরীন রুট ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটে নিয়মিতভাবে ফ্লাইট পরিচালনা করছে ইউএস-বাংলা।
‘ফ্লাই ফাস্ট-ফ্লাই সেফ’ শ্লোগান নিয়ে যাত্রা শুরু করা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স, নতুন দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট ছাড়াও দ্রুততম সময়ে দু’টি ড্যাশ ৮-কিউ৪০০ এয়ারক্রাফট বিমান বহরে যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে।
ভবিষ্যত পরিকল্পনার অংশ হিসেবে, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স জেদ্দা, দাম্মাম, রিয়াদ, হংকং, দিল্লী, চেন্নাই, কলম্বো, মালেসহ বিভিন্ন রুটে ফ্লাইট চালানোর পরিকল্পনা করছে।
ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স যাত্রা শুরুর পর থেকে অন-টাইম ফ্লাইট অপারেশন, আন্তর্জাতিক মানের কেবিন সার্ভিস, উন্নত মানের নিজস্ব ক্যাটারিং সার্ভিস, যা যাত্রী সাধারণের কাছে একটি নির্ভরযোগ্য এয়ারলাইন্স হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। ইউএস-বাংলা’র সঠিক সময়ে ফ্লাইট পরিচালনার রেকর্ড শতকরা ৯৮.৭ ভাগ।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top