logo
news image

মায়ের বুকের দুধই জীবনের ভিত্তি

অধ্যাপক তাহমীনা বেগম।  ।  
১ থেকে ৭ আগস্ট পর্যন্ত ছিল বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ। এ বছরের স্লোগান ছিল—মায়ের বুকের দুধই জীবনের ভিত্তি। শিশুর জীবনের শুভসূচনা মায়ের দুধের মাধ্যমে। মায়ের দুধ শিশুর জন্য সর্বোত্তম খাবার এবং শালদুধ শিশুর জীবনের প্রথম টিকা। জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যে মায়ের বুকে দিলে শিশু মায়ের দুধে তাড়াতাড়ি অভ্যস্ত হয় এবং মায়ের দুধ তৈরি হতে সাহায্য করে।
শিশুর জন্য, মায়ের নিজের জন্য, পরিবার ও সমাজের জন্য মায়ের দুধের উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না।
১. শিশুর জন্য উপকারিতা
● শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয় সব উপাদান মায়ের দুধেই আছে।
● খাবার সহজে হজম হয় এবং অ্যালার্জি হয় না।
● মায়ের দুধে অ্যান্টিবডি থাকে, যা শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া ও অন্যান্য সংক্রামক রোগ থেকে শিশুকে রক্ষা করে।
● মায়ের দুধ খেলে শিশুর বুদ্ধি বাড়ে, কৌটার দুধ খাওয়া শিশুদের তুলনায় তাদের বুদ্ধি ৯ গুণ বেশি থাকে।
● মায়ের সঙ্গে আত্মার বন্ধন তৈরি হয়।
● শিশু ভালো মানুষ হয়ে বড় হয়, মায়ের মমতা ও ভালোবাসা পেয়ে বড় হওয়া শিশু সব মানুষকে ভালোবাসতে শেখে।
২. মায়ের জন্য উপকারিতা
● মায়ের আত্মবিশ্বাস বাড়ায়
● মায়ের দুধ প্রাকৃতিক, যেকোনো অবস্থায়, যেকোনো সময় মা খাওয়াতে পারেন। কোনো প্রস্তুতির প্রয়োজন পড়ে না।
● শিশুর জন্মের পর মায়ের রক্তক্ষরণ কম হয়।
● শুধু বুকের দুধ খাওয়ালে প্রাকৃতিকভাবে জন্মনিয়ন্ত্রণের কাজ করে।
● মায়ের জরায়ু ও স্তন ক্যানসার রোধ করে।
মায়ের দুধ সত্যিকার অর্থেই শিশুর জীবনের ভিত্তি, শুভসূচনা। আমাদের শিশুদের সুস্থ ও সুন্দর করে গড়ে তুলতে আসুন আমরা সবাই যে যেখানে আছি, মাকে সাহায্য করি এবং পরিবারের সবাইকে উদ্বুদ্ধ করি যেন তারা শিশুকে সফলভাবে মায়ের দুধ খাওয়াতে মাকে সহযোগিতা করেন।
* অধ্যাপক তাহমীনা বেগম: শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ও সভাপতি, বাংলাদেশ নিওনেটাল ফোরাম

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top