logo
news image

পোশাক খাতের শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ৫৭১০ টাকা চূড়ান্ত

পোশাক খাতের পশ্চাৎ সংযোগ (ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ) শিল্প বস্ত্র খাতের শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি ৫ হাজার ৭১০ টাকা চূড়ান্ত করেছে এ-সংক্রান্ত মজুরি বোর্ড। সম্প্রতি এ খাতের নতুন মজুরি কাঠামো নিয়ে বোর্ডের চূড়ান্ত সুপারিশ গেজেট আকারে প্রকাশ পেয়েছে।

দেশের কটন টেক্সটাইল বা বস্ত্র শিল্পের শ্রমিকদের মজুরি সর্বশেষ পর্যালোচনা হয় ২০১১ সালে। ওই বছর নির্ধারিত মূল মজুরি ছিল ২ হাজার ১৫০ টাকা। এর সঙ্গে বাড়ি ভাড়া ৭৫২ টাকা ৫০ পয়সা, চিকিৎসা ব্যয় ৩০০ টাকা ও যাতায়াত ভাতা ১০০ টাকা যোগ করে ন্যূনতম মোট মজুরি ৩ হাজার ৩০২ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ হয়। তবে নতুন কাঠামোয় তা বাড়িয়ে ৫ হাজার ৭১০ টাকার চূড়ান্ত সুপারিশ করেছে বোর্ড। ৫ হাজার ৭১০ টাকা মজুরির আওতায় পড়বেন দেশের উপজেলা ও অন্যান্য এলাকায় স্থাপিত বস্ত্র খাতের শ্রমিকরা। জেলা শহরের বস্ত্র কারখানা শ্রমিকদের মাসিক মোট মজুরি হবে ৫ হাজার ৯৯০ টাকা। আর বিভাগীয় শহরের বস্ত্র খাতের শ্রমিকরা পাবেন মাসিক ৭ হাজার ১৭০ টাকা মজুরি।

বস্ত্র খাতের শ্রমিকদের মজুরি পর্যালোচনায় ২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল বোর্ড গঠন করে সরকার। বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি ছিলেন ঢাকা কটন মিলস ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মো. মোস্তফা এবং মালিকপক্ষের প্রতিনিধি ছিলেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) সাবেক পরিচালক ও জামাল উদ্দিন টেক্সটাইল প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জামাল উদ্দিন।

জানা গেছে, বোর্ড গঠনের পর মজুরি পর্যালোচনায় একাধিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। বোর্ডের পক্ষ থেকে নরসিংদী ও নারায়ণগঞ্জে অবস্থিত আবেদ টেক্সটাইল অ্যান্ড প্রসেসিং মিলস লিমিটেড, মমিন স্পিনিং মিলস লিমিটেড ও জামাল উদ্দিন টেক্সটাইল প্রাইভেট লিমিটেড সরেজমিন পরিদর্শন শেষে মজুরি-সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়। পাশাপাশি মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধিদের মজুরি প্রস্তাবসহ শ্রমিকদের জীবনযাপন ব্যয়, জীবনযাপনের মান, উৎপাদন খরচ, উৎপাদনশীলতা, উৎপাদিত দ্রব্যের মূল্য, মূল্যস্ফীতি, কাজের ধরন, ঝুঁকি ও মান, ব্যবসায়িক সামর্থ্যসহ শিল্পসংশ্লিষ্ট এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থাও পর্যালোচনা করেন বোর্ড সদস্যরা।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top